'তিল ঠাঁই আর নাহি রে'- গতকাল শুক্রবার অমর একুশে বইমেলার ১১তম দিন ছিল ঠিক এ রকম। সাপ্তাহিক ছুটির দিন, তাই মেলায় গতকাল আসা মানুষজনের মধ্যে ছিল পারিবারিক উৎসবের আমেজ। সকালের শিশু প্রহরের পর বিকেলেও মিলেছে এই চিত্র। যদিও ভিড় ছিল। কিন্তু ভিড়ের মধ্যেও মনে হচ্ছিল, মানুষ যেন এসেছে পুরো পরিবার মিলে বই কিনতে।

ছোট ছেলেমেয়েকে নিয়ে এসেছেন রাজীব আহসান। ব্যবসার কাজে অন্যদিন সময় পান না তিনি। তাই সবাই মিলে এসেছেন ছুটির দিনে। ছেলেমেয়েকে বই কিনে দেওয়ার পাশাপাশি নিজেও কিনেছেন বই।

শরীফ সিরাজ মেলায় এসেছেন নববধূকে নিয়ে। সঙ্গে এসেছে তাদের ছোট ভাই আর বোন। তিনি বললেন, চাকরি নিয়ে এত ব্যস্ত থাকতে হয়, সময়ই পাই না। আজ তাই এসেছি পরিবারের সবাইকে সঙ্গে করে।

বন্ধুদের নিয়ে মেলায় এসেছেন নাসুহা নুহিন। বললেন, এ বছর আজই প্রথম এলাম।

তিনি কিনেছেন কমিক, সায়েন্স ফিকশন আর কবিতার বই।

পুঁথি নিলয়ের প্রকাশক শ্যামল পাল বলেন, মেলার সময় বাড়বে। মেলার বিক্রি নিয়ে সন্তুষ্ট এই প্রকাশক বলেন, মানুষ বইমেলায় আসছে। নিজে বই নিচ্ছেন, প্রিয়জনকে দিচ্ছেন উপহার। পরিবারকে নিয়ে যারা আসছেন, তারা বই কেনার একটি পারিবারিক সংস্কৃতিও তৈরি করছেন। এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

বাংলাদেশ জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশক সমিতির সভাপতি ফরিদউদ্দিন বলেন, একুশে ফেব্রুয়ারির পরের শুক্রবার যে চিত্র থাকে, এ শুক্রবারের চিত্র ঠিক একই রকম। পাঠকরা বইমেলায় আসছেন। পরিবারের সবাই একসঙ্গে আসছেন। শিক্ষার্থীরাও আসছেন দলবেঁধে।

তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের নিয়ে বই : তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের জীবনযুদ্ধের কথা লিখেছেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উপসচিব লেখক সাগরিকা নাসরিন। অনন্যা প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত তার 'জ্যোৎস্নাময়ী' উপন্যাসের দ্বিতীয় পর্ব 'চন্দ্রমুখী তবুও হেসেছিল একদিন' বইয়ে তাদের উপজীব্য করে কাহিনি নির্মাণ করেছেন তিনি।

গতকাল মেলায় এ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করেন পোশাক শিল্পের উদ্যোক্তা রাখি শেখ। তবে পোশাক ব্যবসার পাশাপাশি তিনি স্বপ্ন জয় ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের নিয়ে নাচ-গান, অভিনয়সহ নানা কার্যক্রম পরিচালনা করেন। এ সময় নাট্যকর্মী মৌমিতা মৌ সমকালকে বলেন, এবারই প্রথম মেলায় এসেছেন তিনি। মেলায় তাদের নিয়ে বই বের হয়েছে। তাদের নিয়ে কেউ লেখে না। কিন্তু যোগ্যতা, দক্ষতা দিয়ে তারাও সামাজিক ক্ষেত্রে স্থান করে নিচ্ছেন।

নতুন বই: গতকাল শুক্রবার মেলা চলে সকাল ১১টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত। এদিন নতুন বই এসেছে ২৪৯টি। এসব বইয়ের মধ্যে রয়েছে- মাওলা ব্রাদার্স থেকে মাহবুব আজীজের 'সম্ভব যতদূর', কথাপ্রকাশ থেকে ফয়জুল ইসলামের 'ঘুমতৃষ্ণা', আগামী প্রকাশনী থেকে সফিকুল ইসলামের 'যে কথা যায় না বলা, সেকথা কোথায় নিত্য বাজে', সময় প্রকাশন থেকে তাসরুজ্জামান বাবুর 'অশোকা সিক্রেটস', শোভা প্রকাশ থেকে মুসা আল হাফিজের 'ঈশ্বরের মৃত্যু ও অন্যান্য', শব্দশিল্প থেকে দিবাকর দের 'আর্তনাদ', অক্ষর প্রকাশনী থেকে রফিকুর রশীদের শ্রেষ্ঠ গল্প, কবি মানস থেকে নূরুল আফসারের 'অমানিশা' ইত্যাদি।

মূল মঞ্চের অনুষ্ঠান: গতকাল বিকেল ৪টায় গ্রন্থমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় 'বিদ্রোহী কবিতার শতবর্ষ এবং বিদ্রোহী কবিতা ও ৭ মার্চের ভাষণ' শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন যথাক্রমে অধ্যাপক সৌমিত্র শেখর ও রাশিদ আশকারী। সৌমিত্র শেখরের অনুপস্থিতিতে তার লিখিত প্রবন্ধ পাঠ করেন বাংলা একাডেমির উপপরিচালক (চলতি দায়িত্ব) সাহেদ মন্তাজ। আলোচনায় অংশ নেন অনিরুদ্ধ কাহালী, শিহাব শাহরিয়ার এবং তপন বাগচী। সভাপতিত্ব করেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা।

সভাপতির বক্তব্যে কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা বলেন, বাংলা ভাষা তথা বিশ্বে মানুষের কল্যাণে যত শিল্প ও সফল কবিতা রচিত হয়েছে, 'বিদ্রোহী' কবিতা তার অন্যতম। আত্মোপলব্ধি ও আত্মপরিচয়ের সন্ধানে আমাদের বারবার ফিরে যেতে হয় নজরুলের 'বিদ্রোহী' কবিতা ও বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণের কাছে।

ভাষাশহীদ মুক্তমঞ্চ: বিকেল ৩টায় এই মঞ্চে শুরু হয় কবিকণ্ঠে কবিতা পাঠ। স্বরচিত কবিতা পাঠে অংশ নেন ২৫ জন কবি। এই মঞ্চে তিনটি নতুন গ্রন্থ উন্মোচিত হয়। বিকেল ৪টায় প্রদর্শিত হয় হুমায়ূন আহমেদ পরিচালিত চলচ্চিত্র 'আগুনের পরশমণি'।

'লেখক বলছি' মঞ্চ: গতকাল মেলায় 'লেখক বলছি' মঞ্চে মোড়ক উন্মোচন করা হয় সমকালের কুড়িগ্রাম চিলমারী প্রতিনিধি নাজমুল হুদা পারভেজের 'গন্তব্যহীন এক চিঠি : বিচারপতি মো. আশফাকুল ইসলাম' শীর্ষক বইটির। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলা একাডেমির প্রশাসন, মানবসম্পদ উন্নয়ন ও পরিকল্পনা বিভাগের পরিচালক কেএম মুজাহিদুল ইসলাম, শিল্পপতি মতিয়ার রহমান, কবি একে রেজাউল ইসলাম, অধ্যাপক আতাউর রহমান সাজু প্রমূখ।

আজকের অনুষ্ঠান: আজ শনিবার অমর একুশে বইমেলার ১২তম দিন। মেলা চলবে সকাল ১১টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত। আজও বইমেলায় থাকছে শিশু প্রহর। সকাল ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত শিশু প্রহর ঘোষণা করা হয়েছে।

এদিন বিকেল ৪টায় বইমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হবে 'অমর একুশের সাহিত্য ও সংস্কৃতি' শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন বিশ্বজিৎ ঘোষ। আলোচনায় অংশ নেবেন খালেদ হোসাইন, আহমাদ মোস্তফা কামাল এবং ফারহান ইশরাক। সভাপতিত্ব করবেন মফিদুল হক।