যে কোনো দেশের জন্য যুবশক্তি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কারণ যুবকরাই আগামী দিনের ভবিষ্যৎ। তাদের হাত ধরেই এগিয়ে যাবে দেশ এবং জাতি। তাই একটি দেশের জন্য প্রতিনিধি (নেতা) ও দক্ষ জনবল গড়ে তোলা যেমনি অনেক বেশি প্রয়োজন, ঠিক সেই সঙ্গে ভৌগোলিক গণ্ডি পেরিয়ে বিভিন্ন দেশের সঙ্গে আন্তর্জাতিক সুসম্পর্ক গড়ে তোলার সক্ষমতা থাকাটা আবশ্যক।

কূটনীতি, আন্তর্জাতিক সম্পর্ক, সুশাসন, যুব স্বেচ্ছাসেবকতা এবং বিশ্বে নেতৃত্বের চর্চা প্রচারে নিবেদিত ২০১৪ সালে বাংলাদেশের যুবকদের একটি গ্রুপ দ্বারা প্রতিষ্ঠিত সামাজিক যুব সংগঠন হাউস অব ইয়ুথ ডায়ালগ (HYD)। প্রতিষ্ঠানটি প্রতি বছর বিশ্বের সমসাময়িক ইস্যু, জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব, বিভিন্ন দেশের প্রতিনিধি হিসেবে উত্থাপিত সমস্যাগুলো সমাধান বের করা ইত্যাদি বিষয়কে কেন্দ্র করে প্রতিযোগিতার আয়োজন করে এবং সেই আয়োজনে এশিয়া মহাদেশের অন্তর্ভুক্ত বাংলাদেশ, ভুটান, পাকিস্তান, ভারতসহ অন্যান্য দেশের অনেক শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে।

এই বছর হাউস অব ইয়ুথ ডায়ালগ টিম বৈশ্বিক পানি সংকট মোকাবিলা এজেন্ডায় গত ২৫ থেকে ২৭ মার্চ পর্যন্ত তিন দিনব্যাপী বঙ্গবন্ধু মডেল জাতিসংঘ সম্মেলন ২০২২ সফলভাবে সম্পন্ন করেছে। প্রায় শতাধিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ৪২০ জন শিক্ষার্থী, ১২ জন প্রশিক্ষিত বিচারক এবং ৩৫ জন আয়োজকের সমন্বয়ে আয়োজিত এই কনফারেন্সে দেশের বিদ্যমান পানি সমস্যা নিয়ে আলোচনা করা হয়।

বঙ্গবন্ধু ছায়া জাতিসংঘ সম্মেলন নিয়ে এই শীর্ষ সম্মেলনটিতে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন দেশ প্রধানের প্রতিনিধি হিসেবে অনুকরণ করা, জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবগুলো কমাতে বিশ্বব্যাপী পানি সংকটের ওপর দৃষ্টি নিবদ্ধ করে নির্বাচিত এজেন্ডায় খসড়া রেজুলেশন নিয়ে আসে এবং উপস্থাপিত বিষয়গুলো নিয়ে একে অপরের সঙ্গে বিতর্ক ও আলোচনা করে। এবারের আয়োজনে সামিটে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আবুল হাসান চৌধুরী, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশের ঢাকায় ব্রুনাইয়ের হাইকমিশনার হাজি হারিস দিন হাজি ওসমান।

২৭ মার্চ সন্ধ্যায় হোটেল র‌্যাডিসন ব্লু ওয়াটার গার্ডেনে জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে সামিটের সমাপনী অনুষ্ঠানে ডেপুটি সেক্রেটারি জেনারেল মোহাম্মদ রায়হান, ব্রুনাইয়ের হাইকমিশনার হাজি হারিস বিন হাতি ওসমান ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে হাউস অব ইউথ ডায়ালগের সভাপতি হাসিম ইসলাম লন্ডন থেকে যোগদান করেন এবং জলবায়ু পরিবর্তনের বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করেন। সেক্রেটারি জেনারেল হিসেবে তিনিই আয়োজনটির আনুষ্ঠানিক সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

এরপর সম্মেলনে অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন। এই আয়োজন থেকে নানাভাবে উপকৃত হয়েছে সবাই। যারা পুরস্কার পেয়েছেন তারা বলছেন, এ ধরনের আয়োজনে পেশাদার ব্যক্তিরা তাদের অভিজ্ঞতা শেয়ার করেছেন, তা থেকে আমরা অনেক কিছু জানতে পেরেছি।