বিদেশে কর্মসংস্থান, গবেষণা, ব্যবসা-বাণিজ্য, উচ্চশিক্ষা প্রতিটি সেক্টরে রয়েছে ইংরেজির গুরুত্ব। বিশ্বজুড়ে যে কোনো প্রান্তের মানুষের সঙ্গে কথোপকথনের জন্য ইংরাজি ভাষা জানা খুবই প্রয়োজন। কারণ এই ভাষাটির বিস্তার বিশ্বজুড়ে। বর্তমানে বহির্বিশ্বের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করতে অন্যতম মাধ্যম ইংরেজি ভাষা। কারণ বিশ্বে প্রায় এক হাজার ৩৪৮ মিলিয়ন মানুষ ইংরেজিতে কথা বলে। বিদেশে কর্মসংস্থান কিংবা উচ্চশিক্ষার জন্য ইংরেজি জ্ঞান ভালো হলে এটি দক্ষতা হিসেবে ভাবা হয়। এ ছাড়াও গবেষণা, ব্যবসা-বাণিজ্য থেকে শুরু করে প্রায় প্রতিটি সেক্টরে রয়েছে ইংরেজির গুরুত্ব। তাই বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো UN English Language Day উদযাপন এবং ইংরেজি ভাষার প্রচলন ছড়িয়ে দিতে ২৩ থেকে ৩০ এপ্রিল আট দিনব্যাপী বাংলাদেশ ইংরেজি ভাষা সামিট ২০২২ (Bangladesh English Language Summit 2022) -আয়োজন করে রাজধানীর বিএএফ শাহীন কলেজ।

আয়োজনটির উদ্দেশ্য ছিল ইংরেজি ভাষাবিদদের একত্র করা এবং শিক্ষার্থীদের মধ্যে ইংরেজি ভাষা নিয়ে প্রতিযোগিতার আয়োজন। পাশাপাশি ইংরেজি ভাষার প্রয়োজনীয়তা সবার মধ্যে ছড়িয়ে দিয়ে আন্তর্জাতিক বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া। বিএএফ শাহীন কলেজের ইংরেজি ল্যাঙ্গুয়েজ অ্যান্ড লিটারেচার ক্লাব (BAF Shaheen College Dhaka English Language and Literature Club) প্রোগ্রামটির আয়োজন করে। ৩০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে প্রায় দুই হাজার ছাত্রছাত্রী এই আয়োজনে অংশগ্রহণ করে।

বিশাল এই আয়োজন একই সঙ্গে অনলাইন ও অফলাইন দুই প্রক্রিয়ায় করা হয়। প্রতিযোগিতাটির বিভিন্ন ধাপ অতিক্রম করে ফাইনাল রাউন্ডে জায়গা করে নেয় মির্জাপুর ক্যাডেট কলেজ, নটর ডেম কলেজ, সেন্ট জোসেফ কলেজ, বিএএফ শাহীন কলেজ ঢাকা, ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজ, ময়মনসিংহ ক্যাডেট কলেজ, রাজউক উত্তরা মডেল কলেজ, ঢাকা রেসিডেনসিয়াল কলেজ, ঢাকা কলেজ, ঢাকা সিটি কলেজ, মাস্টারমাইন্ড স্কুল এবং সরকারি বিজ্ঞান কলেজ। ফাইনাল রাউন্ডে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় হওয়ার গৌরব অর্জন করে যথাক্রমে ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজ, ময়মনসিংহ ক্যাডেট কলেজ ও বিএএফ শাহীন কলেজ। প্রোগ্রাম সম্পর্কে আয়োজক ক্লাবের প্রেসিডেন্ট ধ্রুব নীল বলেন, 'প্রথমবারের মতো বাংলাদেশ ইংলিশ ল্যাঙ্গুয়েজ সামিট আয়োজন করতে পেরে আমরা আনন্দিত। আমরা চাইব, আগামী বছর আরও বড় পরিসরে এই সামিটের আয়োজন করতে। আমার অনুরোধ থাকবে, সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কাছে যাতে তারা এই সামিটকে প্রাধান্য দেয় এবং শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কাছে আর্জি থাকবে এই সামিট আয়োজনে তারা আমাদের সহযোগিতা করুক।' আয়োজনে শিক্ষার্থীদের আগ্রহ ছিল চোখে পড়ার মতো। বিজয়ী দল ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজ শিক্ষার্থীরা বলেন, বিজয়ী হতে পেরে আমরা আনন্দিত। আট দিনব্যাপী সামিটের মধ্য দিয়ে আমরা ইংরেজি ভাষা সম্পর্কে নতুন নতুন অনেক তথ্য জানতে পেরেছি। সামিট আয়োজকদের ধন্যবাদ জানাচ্ছি।'