ঢাকা বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হিম উৎসব

আয়োজন

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হিম  উৎসব

গুরুত্বপূর্ণ জাতীয় উৎসব উদযাপনেও সক্রিয় ভূমিকা রাখে কৃষ্ণচূড়া

আবু আখের সৈকত

প্রকাশ: ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ | ০৬:৩১

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষী ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থীদের সাংস্কৃতিক সংগঠন ‘কৃষ্ণচূড়া’। যান্ত্রিকতার এই শহরে শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার দীর্ঘ ব্যস্ততার অবসাদ কাটাতে একটুখানি চিত্তবিনোদনের ছোঁয়া দিতে কৃষ্ণচূড়ার ভূমিকা অতুলনীয়। বছরের বিভিন্ন সময় ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থীরা কৃষ্ণচূড়া নামে এ সংগঠনের উদ্যোগে বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে থাকে।
সংগঠনটি বছরের বিভিন্ন সময় বিভাগের শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের নিয়ে যতগুলো আয়োজন করে থাকে, তার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে শীতকালের হিম উৎসব। এরই ধারাবাহিকতায় গত ২৮ জানুয়ারি আয়োজিত হয়েছিল হিম উৎসব-২০২৪।
সূর্য পশ্চিম আকাশে কিঞ্চিৎ হেলে পড়ার পরই ধীরে ধীরে শিক্ষার্থীদের আনাগোনা, এরপর সন্ধ্যা বাড়তেই প্রায় সব শিক্ষক-শিক্ষার্থী উৎসব প্রাঙ্গণে চলে আসেন। তখন থেকে শুরু হয়ে রাত পর্যন্ত বিভিন্ন আয়োজনের সমারোহে সরগরম ছিল টিএসসির পুরোনো সুইমিং পুল প্রাঙ্গণ।
অনুষ্ঠান প্রাঙ্গণে ঢুকতেই চোখে পড়ে বাহারি রং আর সাজে বেশকিছু সুসজ্জিত দোকান, যেগুলো সংশ্লিষ্ট বিভাগের শিক্ষার্থীদের মধ্য থেকেই অনুষ্ঠান প্রাঙ্গণে সাজানো। সেখানে স্থান পেয়েছে শীতের পিঠাপুলি, ঝালমুড়ি, ফুচকা, মিষ্টান্ন প্রভৃতি। এ ছাড়া বারবিকিউ পার্টি, মেহেদি উৎসব, ডিপার্টমেন্টের তরুণ উদ্যোক্তাদের বিভিন্ন পণ্যের প্রদর্শনী ছিল অনুষ্ঠানটির অন্যতম সংযোজন। বিকেল গড়াতেই অনুষ্ঠানসূচির অন্যতম আয়োজন দেশীয় খেলাধুলায় মেতে ওঠার ফলে যেন এক অসাধারণ উদ্দীপনা বিরাজ করে শিক্ষার্থীদের মধ্যে। পশ্চিম আকাশে সূর্য ডুবলেই সাংস্কৃতিক সন্ধ্যার আয়োজনে মেতে ওঠে টিএসসি প্রাঙ্গণ। এর পরই শুরু হয় বহুল কাঙ্ক্ষিত অনুষ্ঠানে রেজিস্ট্রেশনকৃত প্রত্যেক ডেলিগেটের অংশগ্রহণে আকর্ষণীয় র‍্যাফেল ড্র। যাতে পুরস্কার হিসেবে ছিল ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থীদের আবেগখ্যাত ‘নর্টন অ্যান্থোলজি’ বই,  বুফে ডিনার, নেটফ্লিক্স সাবস্ক্রিপশন, স্পটিফাই সাবস্ক্রিপশন প্রভৃতি।
বর্ষব্যাপী বিভিন্ন উৎসবের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের একঘেয়েমি উপশম করে কৃষ্ণচূড়া পরিবার। ঐতিহ্যবাহী এ বিভাগ শুধু একাডেমিক দিক থেকেই অন্যতম সেরা নয়, পাশাপাশি চিত্তবিনোদনেও যে সবার চেয়ে এগিয়ে– পুরো ক্যাম্পাসে তার জানান দেয় ইংরেজি বিভাগের কৃষ্ণচূড়া নামক এই সংগঠন। বিভাগের সব ব্যাচের শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের উপস্থিতিতে উৎসবমুখর দিনটি যেন এক মিলনমেলায় পরিণত হয়েছিল।
কৃষ্ণচূড়া পরিবারের সভাপতি বায়েজিদ ও সাধারণ সম্পাদক শাফায়াতের নিরলস পরিশ্রমে আয়োজিত উৎসবটিতে সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত মুখর ছিল ঢাবির পুরোনো সুইমিং পুল এলাকা।
কৃষ্ণচূড়া শুধু শিক্ষার্থীদের সুস্থ সাংস্কৃতিক বিকাশের দিকেই অগ্রসর করে না, বরং ইংরেজি বিভাগের যে কোনো আয়োজনে এগিয়ে থাকে সব সময়। v

আরও পড়ুন

×