রাজধানী

ইডেনের সাবেক অধ্যক্ষ খুনের ঘটনায় মামলা

প্রকাশ: ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯      

 সমকাল প্রতিবেদক

মাহফুজা চৌধুরী পারভীন -ফাইল ছবি

রাজধানীর ইডেন কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ মাহফুজা চৌধুরী পারভীন হত্যার ঘটনায় মামলা হয়েছে। সোমবার সকাল ১১টার দিকে নিহতের স্বামী ইসমত কাদির গামা বাদী হয়ে রাজধানীর নিউমার্কেট থানায় দুই গৃহকর্মীসহ তিনজনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেন।

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপির) রমনা বিভাগের উপকমিশনার মারুফ হোসেন সরদার সমকালকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

রোববার বিকেল সাড়ে ৩টা থেকে ৫টার মধ্যে এলিফ্যান্ট রোড এলাকায় নিজের বাসায় ইডেন মহিলা কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ মাহফুজা চৌধুরী পারভীন খুন হয়েছেন।

ঘটনার পর রেশমা ও স্বপ্না স্বর্ণালঙ্কার এবং নগদ টাকা নিয়ে পালিয়েছে। রাতেই মাহফুজার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। তিনি তৎকালীন জগন্নাথ কলেজের সমাজবিজ্ঞানের অধ্যাপক ও বিভাগীয় চেয়ারম্যান ছিলেন। তিনি ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক এবং মুক্তিযোদ্ধা কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট ইসমত কাদির গামার স্ত্রী।

পুলিশের রমনা বিভাগের উপকমিশনার মারুফ হোসেন সরদার সমকালকে বলেন, প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে, গৃহকর্মী রেশমা ও স্বপ্না এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে। হত্যার পর ওই বাসা থেকে স্বর্ণালঙ্কার ও টাকা-পয়সা লুট করে নিয়ে গেছে তারা। বাড়িটির নিচতলায় সিসি ক্যামেরার ফুটেজে দেখা গেছে, বিকেল ৫টা ৬ মিনিটে দুই গৃহকর্মী লিফট থেকে নেমে বেরিয়ে যাচ্ছে। তাদের গ্রেফতারে রাতে অভিযান চালানো হয়। হত্যার পেছনে আর কোনো কারণ আছে কি-না তাও খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

ইসমত কাদির গামা জানান, নিউমার্কেট থানাধীন এলিফ্যান্ট রোডের সুকন্যা টাওয়ারের ১৫ ও ১৬ তলার ডুপেক্স ফ্ল্যাটে স্ত্রীকে নিয়ে থাকেন তিনি। তাদের দুই ছেলে থাকেন বিদেশে। রোববার সকাল ১০টার দিকে তিনি ব্যক্তিগত কাজে বাইরে যান। ওই সময় বাসায় রেশমা ও স্বপ্নাসহ তিনজন গৃহকর্মী ছিল। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে বাসায় ফিরে ১৬ তলার কলিং বেল চাপলেও কেউ দরজা খুলছিল না। পরে ১৫ তলার কলিং বেল চাপলে বৃদ্ধা গৃহকর্মী দরজা খোলেন। তখন তিনি ১৬ তলায় গিয়ে দেখেন খাটের ওপর মাহফুজার লাশ পড়ে আছে। শরীর কম্বল দিয়ে ঢাকা ছিল। পাশেই পড়ে ছিল বালিশ। এরপর তিনি আলমারি ও ওয়ারড্রোব এলোমেলো অবস্থায় দেখতে পান। আর বাসার নতুন গৃহকর্মী রেশমা ও স্বপ্না বাসায় নেই। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে। এর আগে সিআইডির ক্রাইম সিন ইউনিট ঘটনাস্থলের আলামত সংগ্রহ করে।

ইসমত কাদির জানান, গৃহকর্মী সরবরাহ প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে এক মাস আগে স্বপ্না ও দুই মাস আগে রেশমা তাদের বাসায় গৃহকর্মীর কাজ নেয়। স্বপ্নার বাড়ি কিশোরগঞ্জ এবং রেশমার বাড়ি ফরিদপুরের বোয়ালমারী। তিনি অভিযোগ করেন, দুই গৃহকর্মী তার স্ত্রীকে খুন করেছে।