মাঠে রাজউকের ২৪ দল, প্রথম দিনে শতাধিক ভবন পরিদর্শন

প্রকাশ: ০১ এপ্রিল ২০১৯     আপডেট: ০১ এপ্রিল ২০১৯      

সমকাল প্রতিবেদক

সোমবার রাজউকের ২৪টি দল রাজউক আওতাধীন এলাকার বিভিন্ন ভবন পর্যবেক্ষণ করে। ছবি: স্টার মেইল

রাজধানীতে একের পর এক অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় বহুতল ভবনগুলোর নির্মাণ ও ত্রুটি-বিচ্যুতি চিহ্নিত করতে মাঠে নেমেছে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক)। সোমবার রাজউকের ২৪টি দল রাজউক আওতাধীন এলাকার বিভিন্ন ভবন পর্যবেক্ষণ করে। এ অভিযান টানা ১৫ দিন চলবে। কোন ভবনে কী ধরনের ত্রুটি আছে, বিস্তারিত তুলে ধরা হবে। সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, প্রথম দিন শতাধিক ভবন পরিদর্শন করা হয়েছে। এগুলোর ত্রুটি-বিচ্যুতির তথ্য ছক আকারে রাজউকের প্রধান কার্যালয়ে জমা দেওয়া হবে।

রাজউকের অঞ্চল-৪ (গুলশান, বনানী, মহাখালী, পূর্বাচল)-এর পরিচালক মোহাম্মদ মামুন মিয়া সমকালকে বলেন, তারা পরিদর্শনে গিয়ে মূলত কয়েকটি বিষয় চিহ্নিত করেছেন। এর মধ্যে প্রথমেই রয়েছে নকশা মেনে ভবনটি তৈরি হয়েছে কি-না। যে পরিমাণ উন্মুক্ত স্থান থাকার কথা, সেটা আছে কি-না। সিঁড়ির আয়তন ঠিক আছে কি-না। ভবনটিতে অতিরিক্ত তলা আছে কি-না। যে পরিমাণ অগ্নিনির্বাপক সামগ্রী ভবনে থাকার কথা, তা আছে কি-না সেটা তারা দেখছেন। এককথায় নির্মাণ থেকে শুরু করে সব পর্যায়ে নিয়ম অনুসরণ করে ভবনটির কার্যক্রম চলছে কি-না, সেটা তারা তদারক করছেন।

মোহাম্মদ মামুন মিয়া আরও বলেন, প্রথম দিনের অভিজ্ঞতায় দেখা গেছে, অধিকাংশ ক্ষেত্রে ভবনের নির্মাণকাজ ঠিক থাকলেও কেউ কেউ উন্মুক্ত স্থানে কিছু অবকাঠামো তৈরি করেছেন। কেউ একটি এটিএম বুথ বসিয়েছেন। কেউ ঠিকমতো সিঁড়ি রাখেননি। কেউ অতিরিক্ত তলা তৈরি করেছেন। আবার সব নিয়ম মেনেই কার্যক্রম পরিচালনা করার মতো কয়েকটি ভবনও তারা পেয়েছেন।

সোমবার রাজউকের আটটি অঞ্চলের প্রতিটিতে তিনটি করে দল মাঠ পর্যায়ে কাজ শুরু করেছে। এই দলে রয়েছেন অথরাইজড অফিসার, সহকারী অথরাইজড অফিসার, ইন্সপেক্টরসহ অন্যরা। এ ছাড়া কোনো কোনো দলে প্রধান ইমারত পরিদর্শক ও পরিচালকও উপস্থিত থাকছেন।

জানা গেছে, প্রতিটি দল কমবেশি ৫ থেকে ১০টি ভবন পরিদর্শন করতে পেরেছে। রাজউকের ৫ নম্বর অঞ্চলের (ধানমণ্ডি, লালবাগ) শাহ আলম চৌধুরী জানান, তারা কেবল বহুতল ভবনগুলো পরিদর্শন করছেন। তারা ১২টির মতো ভবন পরিদর্শন করেছেন। দু-একটিতে কিছু অনিয়ম পাওয়া গেছে। প্রতিটি দল সন্ধ্যা পর্যন্ত কাজ করেছে। প্রতিটি দলের প্রতিদিন অন্তত ১০টি করে ভবন পরিদর্শনের টার্গেট রয়েছে।