রাজধানী

শ্যামপুরে বিস্ফোরণে প্রাণ গেল শিশুর, মা-মেয়েসহ আহত ৩

প্রকাশ: ১২ জুন ২০১৯      

সমকাল প্রতিবেদক

রাজধানীর শ্যামপুরে মুন্সীবাড়ী এলাকায় সড়কে হঠাৎ করে সুয়ারেজ লাইনে বিস্ফোরণে আবীর হোসেন নামে সাত বছর বয়সী এক শিশু প্রাণ হারিয়েছে।

মঙ্গলবার সন্ধ্যার এ দুর্ঘটনায় শিশুটির মা ও বোনসহ আরও একজন পথচারী আহত হয়েছেন।

আবীর স্থানীয় একটি স্কুলের প্রথম শ্রেণীর ছাত্র ছিল। নানা বাড়িতে বেড়িয়ে বাসায় ফেরার পথে দুর্ঘটনায় তার প্রাণ গেল।

ওই দুর্ঘটনায় শিশুটির মা আহত মনোয়ারা বেগম (৩০), তার মেয়ে আদিবা আক্তার (১০) এবং ভ্যান চালক রুবেলকে (৩০) ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নিহত আবীরের বাবা সজিব মিয়া পেশায় সেলুনকর্মী।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, মুন্সীবাড়ী তিন রাস্তার মোড় দিয়ে লোকজন হেঁটে যাচ্ছিলেন। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে হঠাৎ করেই সেখানে বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে। সুয়ারেজ লাইনে থাকা লোহার একটি ঢাকনা উড়ে যায়। আশপাশের মাটি ও রাস্তায় থাকা কংক্রিটও উড়ে যায়। এতে ওই চারজন আহত হলে তাদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া চিকিৎসকদের উদ্ধৃত করে বলেন, চিকিৎসাধীন অবস্থায় শিশু আবীরকে রাত পৌনে ৮টার দিকে মৃত ঘোষণা করা হয়। নিহত শিশুটিসহ চারজনেরই হাত-পা ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে স্প্লিন্টারের আঘাতের মতো আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, সুয়ারেজ লাইন বিস্ফোরণের পর রাস্তার কংক্রিটের সুড়কি উড়ে গিয়ে তাদের শরীরে আঘাত করে। এরমধ্যে শিশুটির মাথায় আঘাত ছিল।

দুর্ঘটনার সময়ে পাশেই ছিলেন নিহত আবীরের খালা আঁখি আক্তার। তিনি জানান, আবীর তার বাবা-মা ও বোনের সঙ্গে ধূপখোলা এলাকার বাসায় থাকতো। মঙ্গলবার সকালে তারা জুরাইনে নানাবাড়িতে বেড়াতে আসে। সন্ধ্যার দিকে সেখান থেকে বাসায় ফেরার পথে এমন দুর্ঘটনা ঘটলো।

তিনি জানান, তিনি তার বোন ও ভাগ্নে-ভাগ্নিকে এগিয়ে দিতে যাচ্ছিলেন। তারা মুন্সীবাড়ী তিন রাস্তার মোড়ে যেতেই হঠাৎ করে রাস্তায় বিস্ফোরণ হয়। তিনজন একটু আগে থাকায় তারা আহত হন।

আহত রুবেল বলেন, তিনি ওই পথে যাচ্ছিলেন। হঠাৎ করেই লোহার ঢাকনাটি বিকট শব্দে ওড়ে গেল। রাস্তা উপড়ে বৃষ্টির মতো সুড়কি উড়ে শরীরের উপর পড়ছিল।

শ্যামপুর থানার ওসি মিজানুর রহমান বলেন, তারা ধারণা করছেন, দীর্ঘদিনে পরিস্কার না করায় সড়কের পাশের সুয়ারেজ লাইনে গ্যাস জমে গিয়েছিল। হয়তো কোনো পথচারী জ্বলন্ত সিগারেটের অংশ ফেলার পর সেখানে বিস্ফোরণ হয়ে এমন দুর্ঘটনা ঘটেছে। তবে পুরো বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে।

বিষয় : শ্যামপুর