পুলিশ সেজে ডাকাতি করতে গিয়ে ধরা

প্রকাশ: ১০ জুলাই ২০১৯      

সমকাল প্রতিবেদক

পরনে পুলিশের পোশাক, হাতে ওয়াকিটকি, মাইক্রোবাস নিয়ে ঘুরে বেড়ায় তারা এদিক-সেদিক। হঠাৎ করে বোঝার উপায় নেই– আসল পুলিশ, নাকি নকল। এই সুযোগে নজর রাখত তারা মোটা অঙ্কের টাকা বহনকারী বা স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের দিকে। টার্গেট ব্যক্তিকে আটক করে টাকা-স্বর্ণ কেড়ে নেওয়াই তাদের মূল উদ্দেশ্য। মঙ্গলবারও তারা নেমেছিল ওই ডাকাতির মিশনে। তবে বিধি বাম। গোপন খবরের ভিত্তিতে গুলিস্তান এলাকা থেকে তাদের আট সদস্যকে গ্রেফতার করে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

গ্রেফতার আটজন হলো– আলাউদ্দিন, সবুজ মিয়া, রাসেল মাহমুদ সরকার, জুয়েল শিকদার, নিবাস কুমার সরকার ওরফে স্বপন, রাসেল, দবিরুল মিয়া ও হাসানুল বান্না। তাদের কাছে পাওয়া গেছে ঢাকা রেঞ্জ পুলিশের এসআই পদমর্যাদার র‌্যাঙ্ক ব্যাজসহ এক সেট পুলিশের ইউনিফর্ম, স্কুলব্যাগ, পুলিশ মনোগ্রাম খচিত চামড়ার বেল্ট, হাতকড়া, দুটি ওয়াকিটকি, রামদা, চাপাতি, মাইক্রোবাসের ড্যাশবোর্ডের সামনে 'পুলিশ' লেখা স্টিকার, সিগন্যাল লাইট, বেতের লাঠি, মাইক্রোবাস, মোটরসাইকেল ও লুণ্ঠিত ১০ লাখ ৪৯ হাজার টাকা।

ডিবি সূত্র জানায়, সংঘবদ্ধ ডাকাত দলের সদস্যরা পুলিশ সেজে ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় ডাকাতি করছে বলে গোয়েন্দা তথ্যে জানা যায়। এরপর মঙ্গলবার রাত পৌনে ৮টার দিকে ডিবি দক্ষিণ বিভাগের গাড়ি চুরি/ছিনতাই প্রতিরোধ ও উদ্ধার টিমের সহকারী কমিশনার রফিকুল আলমের নেতৃত্বে একটি দল গুলিস্তান হকার্স মালিক সমিতি মার্কেটের বিপরীতে অভিযান চালায়। এ সময় ডাকাত দলের আট সদস্যকে বিভিন্ন সরঞ্জামসহ গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতাররা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানায়, তাঁতীবাজার এলাকার স্বর্ণ ব্যবসায়ী ও ঢাকার বিভিন্ন স্থানে মোটা অঙ্কের টাকা বহনকারীদের মাইক্রোবাসে তুলে নিত তারা। এরপর নানারকম ভয় দেখিয়ে টার্গেট ব্যক্তির সঙ্গে থাকা স্বর্ণের বার, স্বর্ণালঙ্কার ও নগদ টাকা হাতিয়ে নিত। এ ঘটনায় শাহবাগ থানায় মামলা হয়েছে। বুধবার আদালতে হাজির করা হয়েছে তাদের।