বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী অভিযোগ করেছেন, সিপিবির সমাবেশে বোমা হামলায় আওয়ামী লীগের দায় আছে।

তিনি বলেছেন, ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলার ঘটনায় বিএনপিকে দায়ী করা হলে সিপিবির সমাবেশে হামলার জন্য দায়ী আওয়ামী লীগ। এ ক্ষেত্রে তিনি একটি যুক্তি দাঁড় করানোর চেষ্টা করেছেন। তার ভাষ্য, ২০০১ সালের ২০ জানুয়ারি ক্ষমতায় ছিল আওয়ামী লীগ। ওই ঘটনা ঘটিয়েছিল একটি জঙ্গি সংগঠনের সদস্যরা। সেখানে দলটির নেতাদের নাম নেই। তারা তো ক্ষমতায় ছিলেন। তাদের তো দায়িত্ব ছিল জনসভার নিরাপত্তা দেওয়া।

মঙ্গলবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন। এ সময় রিজভী বলেন, সিপিবির জনসভায় যে হামলা হয়েছে, সেখানে তৎকালীন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দায়ী নন কেন? পুলিশের কর্মকর্তারা দায়ী নন কেনো? ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় যদি বিএনপি নেতারা জড়িত হতে পারেন, তাহলে আওয়ামী লীগের আমলে সিপিবির সমাবেশে হামলায় ক্ষমতাসীন দলেরও দায় আছে।

চট্টগ্রামের লালদিঘীতে আওয়ামী লীগের জনসভায় হামলার জন্য এরশাদ ও তার সরকারের দায় আছে বলে মনে করেন রিজভী। তিনি মনে করেন, ওই গুলির ঘটনা তো পুলিশ ঘটিয়েছিল। ফলে এরশাদসহ তার সরকার এর দায় এড়াতে পারে না।

এ ছাড়া আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যের সমালোচনা করেন রিজভী। সংবাদ সম্মেলনে দলের ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই রায় চৌধুরী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবুল খায়ের ভুঁইয়াসহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন।