‘নকল পণ্য কিনবো না, নকল পণ্য বেচবো না’

ক্যাশপ্রেম বাদ দিয়ে দেশপ্রেম বাড়াতে হবে: শিল্পমন্ত্রী

প্রকাশ: ১২ মার্চ ২০২০     আপডেট: ১৫ মার্চ ২০২০   

সমকাল প্রতিবেদক

‌‘নকল পণ্য কিনবো না, নকল পণ্য বেচবো না’ সমকাল প্রচারাভিযানের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন

‌‘নকল পণ্য কিনবো না, নকল পণ্য বেচবো না’ সমকাল প্রচারাভিযানের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন

নকল পণ্য ঠেকাতে পণ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর মালিকদের ক্যাশপ্রেম (টাকার লোভ) বাদ দিয়ে দেশপ্রেম বাড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন।

বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর তেজগাঁওয়ে সমকাল কনফারেন্স রুমে সমকালের আয়োজনে নকল বা অবৈধ পণ্যের বিরুদ্ধে ‘নকল পণ্য কিনবো না, নকল পণ্য বেচবো না’ শীর্ষক প্রচারাভিযানের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ মন্তব্য করেন তিনি।

অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন বলেন, সাধারণত দেখা যায় বড় বড় প্রতিষ্ঠানগুলো সব ধরনের পণ্য তৈরি করতে চায়। ফলে ছোট প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য বাজারে টিকে থাকা দায় হয়ে যায়। অনেক নামসর্বস্ব কোম্পানি নকল পণ্য বানানো শুরু করে। তাই বড় কোম্পানিগুলোর উচিত সব ধরনের পণ্য প্রস্তুত না করা। 

তিনি বলেন, কিছু কিছু পণ্য ছোট কোম্পানিগুলোর জন্য ছেড়ে দেওয়া উচিত। লাভের আশায় অধিক ক্যাশপ্রেম বাদ দিয়ে দেশপ্রেম বাড়ানো উচিত। বড় কোম্পনিগুলো সব পণ্য তৈরি করতে পারবে না এটা আইন করা দরকার।

শিল্পমন্ত্রী বলেন, ভেজাল পণ্য ঠেকাতে সরকারের উপর সব দায়িত্ব ছেড়ে দিলে হবে না। বড় প্রতিষ্ঠানগুলোরও উচিত ভেজাল প্রতিরোধে নিজস্ব সক্ষমতা বাড়ানো, নিজস্ব টিম তৈরি করা।  

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশের রাজনীতিতেও একসময় নকল ছিল, সেটা সারাতে অনেক সময় লেগেছে। সাদা কাপড় পড়া মানুষগুলো সাদা হলে দেশ থেকেও ভেজাল পণ্য একদিন উঠে যাবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

ভেজাল পণ্য ঠেকাতে আইন-শৃঙ্খলাবাহিনী নয় যেসব মান নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থা আছে সেগুলোর অভিযান পরিচালনা করা উচিত বলে মত দেন শিল্পমন্ত্রী। তিনি বলেন, ভেজালবিরোধী অভিযান র‌্যাবের পরিচালনা করার কথা নয়, পণ্যের মান নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থাগুলো ভেজালবিরোধী অভিযানে র‌্যাবের সহযোগিতা চাইলে তখন তারা সহায়তা করবে। 

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সমকালের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মুস্তাফিজ শফি। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। আরও অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- এফবিসিসিআই সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম, ক্যাব সভাপতি গোলাম রহমান, র‌্যাব মহাপরিচালক ড. বেনজীর আহমেদ, এনবিআর সদস্য মো. মেফতাহ উদ্দিন খান, বিএটি’র চেয়ারম্যান গোলাম মঈন উদ্দিন, প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী আহসান খান চৌধুরী এবং  ইউনিলিভার বাংলাদেশের সিইও ও এমডি কেদার লেলে প্রমুখ।

সমকালের এই প্রচারাভিযানে সহযোগী হিসেবে রয়েছে- বিএসটিআই, র‌্যাব, কনজ্যুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব) এবং ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই, ঢাকা চেম্বার ও জেসিআই-নর্থকে। এই আয়োজনের টেলিভিশন পার্টনার চ্যানেল ২৪ এবং রেডিও পার্টনার ঢাকা এফএম।