কমলাপুর রেল স্টেশনে ভিক্ষুক ও ছিন্নমূল মানুষের পাশে পুলিশ

প্রকাশ: ০৬ এপ্রিল ২০২০     আপডেট: ০৬ এপ্রিল ২০২০   

সমকাল প্রতিবেদক

রাস্তার পাশে পড়ে থাকা ছিন্নমূল মানুষকে খাদ্য সহায়তা দিচ্ছেন খিলগাঁও জোনের এডিসি নূরুল আমীন।

রাস্তার পাশে পড়ে থাকা ছিন্নমূল মানুষকে খাদ্য সহায়তা দিচ্ছেন খিলগাঁও জোনের এডিসি নূরুল আমীন।

করোনাভাইরাস সংক্রামণ ঠেকাতে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে চলমান বন্ধের মধ্যে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকার ভিক্ষুক, রেল স্টেশনসহ বাস ও লঞ্চ টার্মিনালে বসবাসকারী ছিন্নমূল মানুষের খাবার সংকট দেখা দিয়েছে। স্টেশন ও টার্মিনালে জনসমাগম না থাকায় এ সব মানুষেরা খাবার পেতে বিপাকে পড়েছেন। এমন পরিস্থতিতে তাদের পাশে দাঁড়িয়েছে পুলিশ।

গত দু্ইদিন ধরে রাজধানীর কমলাপুর রেল স্টেশনে ভাসমান, ছিন্নমূল মানুষ ও ভিক্ষুকদের খাবার বিতরণ করা হচ্ছে। এ সব মানুষের রান্না করে খাওয়ার সুযোগে না থাকায় পুলিশের পক্ষ থেকে তাদের রান্না করে খাবার দেওয়া হচ্ছে।

ছিন্নমূল মানুষকে খাদ্য সহায়তা দিচ্ছেন খিলগাঁও জোনের এডিসি নূরুল আমীন।

পুলিশের খিলগাঁও জোনের অতিরিক্ত উপ কমিশনার মোহাম্মদ নূরুল আমীন সমকালকে বলেন, ‌প্রতিদিন কমলাপুর স্টেশনে হাজার হাজার যাত্রী যাতায়াত করতেন। ভিক্ষুক ও ভাসমান ছিন্নমূল মানুষ এ সব যাত্রীদের কাছ থেকে ভিক্ষা নিয়ে পেট চালাতেন। তবে গত কয়েকদিন টানা বন্ধে বিপাকে পড়েছে এ সব অসহায় মানুষ। তাদের যেমন নগদ টাকা নেই, তেমনি খাবারও নেই। না খেয়ে অনেক ভাসমান মানুষ অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। এমন পরিস্থিতে তিনি কমলাপুর স্টেশনসহ আশাপাশের এলাকায় ভিক্ষুক ও ভাসমান মানুষদের খাবার বিতরণ করে চলেছেন।

পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, ‘শুধু কমলাপুর স্টেশনই নয়, পুরো খিলগাঁও জোনে ছিন্নমূল ভাসমান মানুষকে ঘুরে ঘুরে খাবার বিতরণ করা হচ্ছে। এমনকি খাবার সংকটে থাকা বেওয়ারিশ কুকুরকেও খাবার দেওয়া হচ্ছে।’ এমন পরিস্থিতি স্থানীয় বিত্তবানদেরও অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান তিনি।