স্বল্প সুদে ঋণ ও আয় কর মওকুফ চান সমবায়ীরা

প্রকাশ: ০৫ জুন ২০২০   

সমকাল প্রতিবেদক

করোনায় আর্থিক ক্ষতির ধাক্কা কাটিয়ে উঠতে স্বল্প সুদে ঋণ চায় দেশের সমবায় প্রতিষ্ঠানগুলো। এছাড়া বিদ্যমান ১৫ শতাংশ আয়কর প্রত্যাহার চায় তারা। তা না হলে দারিদ্র হ্রাসের অন্যতম মাধ্যম সমবায় প্রতিষ্ঠানগুলো চরম সংকটে পড়বে। পাশাপাশি দারিদ্র হ্রাস কর্মসূচিও ব্যাহত হবে।

এ নিয়ে সম্প্রতি ১ হাজার ৪৮টি সমবায় সমিতিগুলোর সংগঠন ক্রেডিট ইউনিয়ন লীগ অব বাংলাদেশ লিমিটেড (কাল্ব) প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ও স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ে আবেদনও দিয়েছে।

জানা গেছে, সমবায় অধিদপ্তরে ১ লাখ ৭৭ হাজার নিবন্ধিত সমবায় সমিতি এবং প্রায় দেড় কোটির অধিক সমবায়ী রয়েছেন। এর মধ্যে ২৪ হাজার সমবায় সমিতি সরাসরি বাণিজিক কার্যক্রমের সাথে যুক্ত। প্রায় ৯ লাখ কর্মী সমিতিতে কাজ করেন। এদের মূলধনের পরিমাণ ৭ হাজার কোটি টাকারও বেশি।

করোনার কারণে সব কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যাওয়অর কারণে গত তিন মাসে ব্যাপক সংকটের মধ্যে পড়তে হয়েছে সমিতিগুলোকে। পুঁজি ভেঙে কর্মচারীদের বেতন দিতে হয়েছে। এতে দরিদ্র সমবায়ীরা ব্যাপকভাবে আর্থিক সংকটে পড়েছেন।

কাল্বের সাধারণ সম্পাদক আলফ্রেড রায় সমকালকে বলেন, করোনার কারণে সমবায় প্রতিষ্ঠানগুলোর পক্ষে কর্মীদের বেতন দেওয়াই কঠিন হয়ে পড়েছে। সব ধরনের কার্যক্রমও প্রায় বন্ধ। আর এসব সমবায়ে যারা কাজ করেন তাদের বেশিরভাগই অতি দরিদ্র। সমবায়ীদের ক্ষেত্রেও তাই। এ অবস্থায় সরকার স্বল্প সুদে ঋণ দিলে সমবায় খাত ঘুরে দাঁড়াতে পারবে। দেশের দরিদ্র সমবায়ীরাও বাঁচবে।

কাল্বের দেওয়া আবেদনে বলা হয়েছে, জাতিসংঘের হিসাব মতে বিশ্বের প্রায় ৩০০ কোটি মানুষ সমবায়ের মাধ্যমে জীবনযাত্রা নির্বাহ করে। দেশের প্রায় ১৭ কোটি মানুষের দেড় কোটির বেশি সরাসরি সমবায়ের সাথে যুক্ত। চাকরি হারানো প্রবাসী ও চাকরি হারানো গার্মেন্ট কর্মীদের নিয়ে সমবায় গঠন করে তাদের মধ্যে ক্ষুদ্র ঋণ সহায়তা প্রদান করে খাদ্য উৎপাদন বৃদ্ধিসহ বিভিন্ন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা গেলে দারিদ্র্য বিমোচন ও সামাজিক বিশৃঙ্খলাও রোধ করা যেতে পারে। এ জন্য কাল্বের পক্ষ থেকে দেড় হাজার কোটি টাকা স্বল্প সুদে ঋণ ও ১৫ শতাংশ আয়কর এক বছরের জন্য মওকুফ করলে সমবায় খাত করোনার ধাক্কা কাটিয়ে উঠতে পারবে।

এ প্রসঙ্গে সমবায় অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আমিনুল ইসলাম সমকালকে বলেন, কাল্ব একটা আবেদন দিয়েছে। এছাড়াও সমবায় অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে ইতিমধ্যে সমবায় ব্যাংকের মাধ্যমে ১৫০০ কোটি টাকা সমবায় সমিতিগুলোকে ঋণ দেওয়ার আবেদন দেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের কাছে সেই আবেদন পৌছেছে। এখন দেখা যাক কী হয়। আর আয়কর মওকুপ না করলেও কমিয়ে ৫ শতাংশ করলেও ভাল। এটা নিয়ে আগে থেকেই দেন-দরবার চলছে। করোনার কারণে সেই দেন-দরবার আরো শক্ত হয়েছে। এ দুটি দাবি পূরণ হলে সকল সমবায়ীই করোনার ধাক্কা কাটিয়ে উঠতে পারবেন।

বিষয় : সমবায়ী