এবার সাইবার বুলিংয়ের মামলা করলেন ঢাবির সেই ছাত্রী

প্রকাশ: ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০   

সমকাল প্রতিবেদক

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সাবেক সহসভাপতি (ভিপি) নুরুল হক নুরু ও তার পাঁচ সহযোগীর বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও ধর্ষণে সহযোগিতার অভিযোগে দুটি মামলার পর এবার সাইবার বুলিংয়ের অভিযোগে আরও একটি মামলা করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সেই ছাত্রী।

ধর্ষণ ও ধর্ষণে সহযোগিতার অভিযোগে দুটি মামলা করে ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে উত্যক্তের শিকার হচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছেন তিনি। এজন্য তিনি শাহবাগ থানায় পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইন ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের বিভিন্ন ধারায় নতুন মামলাটি করেছেন। গত বুধবার রাতে ওই মামলা করেন তিনি।

শাহবাগ থানার ওসি মামুন-অর-রশিদ সমকালকে বলেন, ফেসবুক আইডি, পেজ ও গ্রুপ থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যৌন উত্তেজনা সৃষ্টিকারী মিথ্যা ও অশ্নীল সংলাপ পোস্ট, শেয়ার ও কমেন্টস করার অভিযোগে ঢাবি ছাত্রী একটি মামলা করেছেন। মামলাটির তদন্ত চলছে।

মামলাকারী ছাত্রী সমকালকে বলেন, ধর্ষণ ও ধর্ষণের সহযোগীতাকারী আসামিদের বিরুদ্ধে দুটি মামলা করার পর থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাকে নানাভাবে হেয় করা হচ্ছে, তার মর্যাদাহানীমূলক পোস্ট, কমেন্ট ও তা শেয়ার দেওয়া হচ্ছে। এতে তিনি মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছেন। তিনি বিচার চাইতে গিয়ে পরিকল্পিতভাবে সাইবার বুলিংয়ের শিকার হচ্ছেন। এজন্য তিনি মামলা করেছেন।

যেসব ফেসবুক আইডি, পেজ ও গ্রুপ থেকে তাকে আক্রমণ করা হচ্ছে তা উল্লেখ করে ওই ছাত্রী এজাহারে বলেছেন, ‌'তামান্না ফেরদৌস শিখা', 'তামান্না আক্তার', 'তাজুল ইসলাম আকাশ', 'শারমিন রিজিয়া', 'এইচ এম হোসাইন বিন নূর', 'মো. তুহিন মোল্লা হৃদয়', 'মেহেদী হাসান সুজন' ও 'রেজাউল করিম কাজল' নামের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট এবং 'স্বপ্নের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়' নামে ফেসবুক গ্রুপসহ অজ্ঞাত শতাধিক ফেসবুক অ্যাকাউন্ট, পেজ ও গ্রুপ থেকে তার নামে যৌন উত্তেজনা সৃষ্টিকারী মিথ্যা সংলাপ পাবলিক পোস্ট, কমেন্ট ও শেয়ারের মাধ্যমে প্রচার করে তার ব্যক্তিগত ও সামাজিক মর্যাদাহানী করে আসছে।

এর আগে গত ২০ ও ২১ সেপ্টেম্বর তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর ও তার পাঁচ সহযোগীর বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও ধর্ষণে সহযোগিতার অভিযোগে লালবাগ ও কোতোয়ালি থানায় দুটি মামলা করেন।

লালবাগ থানার মামলায় ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুনকে প্রধান আসামি আর দ্বিতীয় মামলায় সংগঠনটির যুগ্ম আহ্বায়ক নাজমুল হাসান সোহাগকে প্রধান আসামি করে মামলা করেন। দুই মামলাতেই আসামি হিসেবে সংগঠনটির কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক ও ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর, যুগ্ম আহ্বায়ক সাইফুল ইসলাম, ঢাকা বিশ্ববদ্যালয় শাখার সহ-সভাপতি নাজমুল হুদা ও কর্মী আবদুল্লাহ হিল বাকির নাম রয়েছে।