নভেম্বরের পর ঝুলন্ত তার থাকলেই অভিযান: মেয়র তাপস

প্রকাশ: ১৮ অক্টোবর ২০২০   

সমকাল প্রতিবেদক

ইন্টারনেট ও ক্যাবল টিভিসহ বিভিন্ন ধরনের অবৈধ ঝুলন্ত তার অপসারণ নিয়ে চলমান সংকটের আপাতত সমাধান হয়েছে। ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) ঝুলন্ত তার অপসারণ আপাতত স্থগিত করে নতুন করে সময়সীমা বেঁধে দিয়েছে। যেসব প্রতিষ্ঠান ও সংস্থার তার রাজধানীতে ঝুলে থাকে, তাদের সাথে বৈঠক করে আগামী নভেম্বরের মধ্যে এসব তার তাদেরকে মাটির নিচ দিয়ে প্রতিস্থাপনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সেবা সংস্থার প্রতিনিধিরাও ডিএসসিসি মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপসকে আশ্বাস দিয়েছেন নভেম্বর মাসের মধ্যেই তারা এসব তার মাটির নিচে প্রতিস্থাপন করবেন। ফলে বেশ কিছু দিন ধরে ডিএসসিসি যে তারের জঞ্জাল অপসারণ কাজ চালাচ্ছিল, তা আপাতত বন্ধ থাকবে।

রোববার নগর ভবনে ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (আইএসপিএবি) ও ক্যাবল অপারেটর্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (কোয়াব)-এর নেতৃবৃন্দের সাথে মেয়র দীর্ঘক্ষণ বৈঠক করেন। বৈঠক শেষে মেয়র সাংবাদিকদের বলেন, নভেম্বর মাসের মধ্যে সকল ঝুলন্ত তার মাটির নিচে প্রতিস্থাপন করতে হবে। এরপর যদি আর কোনো অবৈধ ঝুলন্ত তার থাকে, সেগুলো অপসারণ করবে ডিএসসিসি।

বৈঠকে ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এ বি এম আমিন উল্লাহ নূরী, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা আরিফুল হক, কোয়াবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এসএম আনোয়ার পারভেজ ও আইএসপিএবি'র সাধারণ সম্পাদক এমদাদুল হক প্রমুখ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

ডিএসসিসি মেয়র বলেন, তারের জঞ্জালে ঢাকা শহর সয়লাব, সেই জঞ্জাল থেকে আমরা ঢাকা শহরকে মুক্ত করতে চাই। সেজন্যই আমাদের এই আলোচনা। আমরা সকলেই একমত হয়েছি, আমাদের এই প্রাণের ঢাকাকে সুন্দর ঢাকা শহরে পরিণত করতে চাই। আমরা যৌথভাবে কাজ করলে সেটা সম্ভব, সে ঐকমত্যে আমরা উপনীত হয়েছি।

পুরো দক্ষিণ সিটিকে আগামী নভেম্বরের মধ্যে ঝুলন্ত তারের জঞ্জাল থেকে মুক্তি দেওয়ার আশাবাদ ব্যক্ত করে মেয়র তাপস বলেন, তারা নিজ খরচে মাটির নিচ দিয়ে তারের সংযোগ দেবেন এবং সঙ্গে সঙ্গে উপরে ঝুলন্ত তার কেটে দেবেন। আর এটা আগামী নভেম্বরের মধ্যেই শেষ করবেন বলে আমাদের কমিটমেন্ট দিয়েছেন। সে কারণেই আমরা আর তার কাটব না।

আইএসপিএবি সভাপতি এম এ হাকিম বলেন, ঝুলন্ত তার নামিয়ে মাটির নিচে সংযোগের কাজ শুরু হয়ে গেছে। আশা করা যায় নভেম্বরের মধ্যেই পুরো তার মাটির নিচে চলে যাবে।