পঞ্চম শ্রেণি পড়ুয়া শিশুকন্যা ধর্ষণের শিকার হলেও মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরে বিচার পাননি মা। উল্টো হুমকির মুখে মেয়েকে নিয়ে দিন পার করছিলেন তিনি। থানায় গিয়েও মামলা করতে পারেননি। অবশেষে মেয়েকে ধর্ষণের বিচারে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চেয়ে গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলা চত্ত্বর এলাকায় অনশন করেছেন ওই মা। রোববার সকাল থেকে তিনি প্ল্যাকার্ড হাতে অনশন করেন।

ওই মায়ের অভিযোগ- গত মাসের ১০ তারিখ তিনি ব্যক্তিগত কাজে ঢাকায় চলে যান। এই সুযোগে পরদিন তার পঞ্চম শ্রেণি পড়ূয়া মেয়েকে পাশের বাড়ির রফিকুল ইসলাম ধর্ষণের চেষ্টা চালায়; কিন্তু সেদিন মেয়ের চিৎকারে ব্যর্থ হয়ে রফিক ফিরে যায়। পরদিন ১২ অক্টোবর সন্ধ্যায় মেয়েকে আবারও তার বাড়িতে নিয়ে ধর্ষণ করে রফিক। ওই ঘটনা কাউকে না বলার জন্য হুমকিও দেয় সে।

ওই মা আরও জানান, পরে ঢাকা থেকে তিনি বাড়িতে ফিরে এলে মেয়ের কাছে বিস্তারিত শুনে স্থানীয়দের জানান। এক পর্যায়ে থানায় গিয়ে এজাহারও দায়ের করেন; কিন্তু পুলিশ মামলা নেয়নি। ঘটনার ২৬ দিন পর মেয়ে ধর্ষণের বিচারের প্রত্যাশায় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চেয়ে তিনি অনশনে নামেন।

শ্রীপুর থানার ওসি খোন্দকার মো. ইমাম হোসেন বলেন, খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে তার কাছে একজন পুলিশ কর্মকর্তা পাঠানো হয়। তিনি থানায় আসেন এবং বিকেলেই মামলাটি রেকর্ড করা হয়।