ঢাকা বুধবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২৩

সায়েদাবাদে ছাড়ার জন্য প্রস্তুত বাস, যাত্রী নেই

সায়েদাবাদে ছাড়ার জন্য প্রস্তুত বাস, যাত্রী নেই

ছবি: সমকাল

ইন্দ্রজিৎ সরকার

প্রকাশ: ০২ নভেম্বর ২০২৩ | ০৭:৫৩ | আপডেট: ০২ নভেম্বর ২০২৩ | ১৬:০০

রাজধানীর সায়েদাবাদ টার্মিনাল থেকে কুমিল্লাগামী একটি বাস ছাড়বে। ইঞ্জিন চালু করে বসে আছেন চালক। বাসের পাশেই বেশ কিছু মানুষ ভিড় করে আছেন। প্রথমে যাত্রী বলে মনে হলেও পরে জানা গেল, তারা সবাই পরিবহনকর্মী। কেউ ওই বাসের হেলপার, সুপারভাইজার, টিকিট ম্যানেজার; বাকিরা অন্য পরিবহনের। আজ বৃহস্পতিবার দেখা গেল এমন চিত্র। 

পরিবহনকর্মীরা জানালেন, অবরোধের কারণে তিন দিন ধরে যাত্রী খুব কম। ফলে অল্প সংখ্যক বাস চলছে। বেশিরভাগ লোকাল বাস, যা বিভিন্ন স্টপেজে থেমে থেমে যাত্রী সংগ্রহ করে। সরাসরি চলাচলকারী বাস প্রায় বন্ধ। দুই-একটি করে সন্ধ্যার পর ছাড়ে। তবে বাসের কোনো সংকট নেই। সবাই যাত্রীর অপেক্ষায় আছে। 

হানিফ পরিবহনের সুপারভাইজার মো. হৃদয় জানান, কুমিল্লাগামী প্রথম ট্রিপ বেলা ১২টা পর্যন্ত ছাড়া যায়নি। কিছু যাত্রী উঠে বসে আছেন। তাদের বলা হয়েছে, সব আসন পূর্ণ হলে বাস ছাড়বে। কেউ কেউ নাশকতার ভয়ে বাস চালাতে চাইছেন না। অনেক পরিবহন আবার যাত্রীর অভাবে যেতে পারছে না।

লাকসামগামী তিশা পরিবহনের কর্মী মো. সাহেব জানালেন, যাত্রী সংকটের কারণে বাস চালাতে পারছেন না। সকাল থেকে একটিও ট্রিপ যায়নি। বিকেলে হয়তো স্বাভাবিক হবে। তবে বিভিন্ন রুটের লোকাল বাসগুলো ছাড়ছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, কুমিল্লা, সিলেট ও চট্টগ্রামের কিছু লোকাল বাস চলছে। তবে স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে সংখ্যায় কম। যাত্রীদের বাসে উঠেও বসে থাকতে হচ্ছে দীর্ঘ সময়। 

সিলেটগামী রোমার পরিবহনের টিকিট ম্যানেজার বিপ্লব হোসেন বাবু জানান, বেলা ১২টা পর্যন্ত তাদের ১০টির বেশি বাস ছেড়েছে। তবে অন্য সময়ে ৫০টির মতো ছাড়ে।

ঢাকা-সিলেট রুটের মিতালি পরিবহনের একটি বাস সাড়ে ১২টার দিকে যাত্রী নিয়ে ছেড়ে যেতে দেখা যায়। 

চট্টগ্রাম রুটের বাস তুলনামূলক কম চলছে। এই রুটে কক্সবাজার পর্যন্ত চলাচলকারী সিডিএম ট্রাভেলসের কর্মী শরিফুল ইসলাম জানালেন, অন্য সময়ে দুপুর পর্যন্ত তাদের অন্তত ৩০টা বাস ছেড়ে যায়। তবে আজ সাড়ে ১২টা পর্যন্ত গেছে ১২টি। 

আরও পড়ুন