পুরান ঢাকার লালবাগে এক ব্যক্তির ছুরিকাঘাতে আহত হয়েছেন হেফাজতে ইসলামের সহকারী মহাসচিব মাওলানা জসিম উদ্দিন। মঙ্গলবার বিকেলে ওই ঘটনার পর তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার পিঠে ছুরিকাঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

ধর্মভিত্তিক সংগঠনটির কেন্দ্রীয় কমিটির সহকারী মহাসচিব ছাড়াও জসিম উদ্দিন ঢাকা মহানগর কমিটিরও সহসভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি পুরান ঢাকার জামিয়া আরাবিয়া লালবাগ মাদ্রাসার একজন সিনিয়র শিক্ষক। প্রয়াত মুফতি ফজলুল হক আমিনীর জামাতা তিনি।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার পারিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, মঙ্গলবার আসরের নামাজের পর জসিম উদ্দিন লালবাগ মাদ্রাসার দক্ষিণ ফটক থেকে রিকশায় করে বাসায় ফিরছিলেন। তিনি লালবাগ শাহী জামে মসজিদের প্রধান ফটক পার হওয়ার পরপর অজ্ঞাতনামা এক ব্যক্তি পেছন থেকে তাকে ছুরি দিয়ে আঘাত করে পালিয়ে যায়। আশপাশের লোকজন ধাওয়া করেও হামলাকারীকে আটক ধরতে পারেনি।

কেন, কারা তাকে ছুরিকাঘাত করতে পারে জানতে চাইলে জসিম উদ্দিনের ভায়রা ও হেফাজতে ইসলামের সহকারী মহাসচিব মাওলানা যোবায়ের আহমদ বলেন, এখনই কিছু বলা যাচ্ছে না। তবে তিনি সংগঠন নিয়ে বিভক্তি ও মাদ্রাসা নিয়ে দুটি পক্ষের দ্বন্দ্ব রয়েছে বলে জানিয়েছেন।

লালবাগ থানার পরিদর্শক (অপারেশন) মোহাম্মদ আসলাম জানান, মাদ্রাসার কাছেই মাওলানা জসিমকে ছুরি মারা হয়। এতে তার পিঠে গভীর ক্ষত সৃষ্টি হলেও তিনি শঙ্কামুক্ত বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।

পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, তারা আহত ওই শিক্ষকের সঙ্গে প্রাথমিকভাবে কথা বলেছেন। তিনি কাউকে চিনতে পারেননি বলে জানিয়েছেন। তবে পুরোপুরি সুস্থ হলে বিস্তারিত তথ্য নেওয়া হবে। এর বাইরে পুলিশ জড়িত ব্যক্তিকে চিহ্নিত করার চেষ্টা করছে।