আদালতের নির্দেশ সত্ত্বেও বাংলা ভাষায় সাইনবোর্ড (নামফলক) না লেখায় ২২টি ভবন ও প্রতিষ্ঠানের মালিককে এক লাখ ৬৩ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) ভ্রাম্যমাণ আদালত। বৃহস্পতিবার রামপুরা ও বনানী এলাকায় এ অভিযান চালানো হয়।

হাইকোর্টের নির্দেশ অনুসারে সকল প্রতিষ্ঠানের (দূতাবাস, বিদেশি সংস্থা ছাড়া) নামফলক, বিলবোর্ড, ব্যানার ইত্যাদি বাংলায় লেখা বাধ্যতামূলক। কিন্তু এ আদেশ অমান্য করে অনেক দেশি প্রতিষ্ঠানও বাংলা বাদ দিয়ে অন্য ভাষায় সাইনবোর্ড লিখে থাকে।

অভিযানকালে বনানীর কামাল আতাতুর্ক অ্যাভিনিউয়ের আহমেদ টাওয়ার, এ আর টাওয়ার, সফুরা টাওয়ার, ইরেকার্ট হাউজ, বোরাক টাওয়ার, এসুরেন্স, ভিশন কেয়ার, মটকা কিচেন, চাটাই প্রতিষ্ঠানের প্রতিটিকি ৫ হাজার টাকা এবং আরও ২টি প্রতিষ্ঠানকে ২ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়। এছাড়া ৩টি ব্যাংককে ২ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়। এসব ভবন ও প্রতিষ্ঠানের সাইনবোর্ড অপসারণ করে বাংলা ভাষায় প্রতিস্থাপন করার জন্য ৭ দিন সময় দেওয়া হয়। এছাড়া ফুটপাত অবৈধভাবে দখল করার অপরাধে একটি ফুলের দোকানকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

এছাড়া রামপুরা এলাকায় ২২টি প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে এক লাখ ৪৩ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। অভিযানে নেতৃত্ব দেন ডিএনসিসির প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবদুল হামিদ মিয়া, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাজওয়ার আকরাম সাকাপি ইবনে সাজ্জাদ, রিফাত ফেরদৌস ও পার্সিয়া সুলতানা।