পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালীতে ধাওয়া খেয়ে নদীতে ঝাঁপ দিয়ে আবদুল খালেক গাজী (৬৫) নামে এক কবিরাজের মৃত্যু হয়েছে। শনিবার দুপুরে উপজেলার সদর ইউনিয়নের গহিনখালী নদীতে এ ঘটনাটি ঘটেছে। 

কবিরাজ খালেক গাজী উপজেলার ছোটবাইশদিয়া ইউনিয়নের ফুলখালী গ্রামের বাসিন্দা। এ ঘটনায় লাল মিয়া হাওলাদার (৪৫) ও তার সঙ্গী মোটরসাইকেল চালক নাজমুল (২২) নামে দুইজনকে আটক করেছে পুলিশ।

স্থানীয়রা জানান, কবিরাজ খালেক গাজী মাসখানেক আগে পূর্ব বাহেরচর গ্রামের লাল মিয়ার ছেলে আল-আমিনের ভূত ছাড়ানোর কথা বলে ২০ হাজার টাকা নেন। কিছুদিন ঝাড়ফুঁক দিয়েও আল-আমিনের অবস্থার উন্নতি ঘটেনি। এতে টাকা ফেরত দিতে খালেক গাজীকে চাপ দিচ্ছিল লাল মিয়া। কিন্তু টাকা ফেরত না দেওয়ার ঘটনার দিন পুলিশের ভয় দেখিয়ে কবিরাজকে ধাওয়া দিলে সে বাড়ির পেছনের নদীতে ঝাঁপ দেয়। সাঁতরে তীরে পৌঁছলেও সেখানে মৃত্যু হয় তার। পরে স্থানীয়রা খবর দিলে পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়।

খালেক গাজীর মেয়ে খালেদা বেগম বলেন, বাবাকে খুঁজতে লাল মিয়াসহ দুইজন বাড়িতে আসে। তাকে না পেয়ে আশপাশের বাড়িতেও খুঁজছিল। বারবার বিষয়টির সমাধান করে দেওয়ার কথা বললেও গালিগালাজ করে তার বাবাকে মারধর করবে বলে হুমকি দিচ্ছিল। মারধরের ভয়ে বাবা সাঁতরে পালাতে গিয়ে মারা যান।

এ ব্যাপারে রাঙ্গাবালী থানার ওসি দেওয়ান জগলুল হাসান জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়ে মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। দুইজনকে আটক করা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিষয় : ধাওয়া খেয়ে নদীতে ঝাঁপ কবিরাজের মৃত্যু পটুয়াখালী

মন্তব্য করুন