জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে বিশেষ স্মারক গ্রন্থ 'ইতিহাসের মহানায়ক' প্রকাশ করেছে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি।

রোববার ওই গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করেন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও অ্যাটর্নি জেনারেল এএম আমিন উদ্দিন।

সমিতি মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, সমিতির কার্যনিবার্হী সদস্য মশিউর রহমানের উদ্যোগের আমরা স্মারকগ্রন্থটি প্রকাশের আয়োজন করি। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আইনজীবী, আদালত, আইনের শাসন ও বিচার বিভাগ নিয়ে কি ভেবেছেন সে বিষয়গুলো মানুষের সামনে তুলে ধরতেই এই প্রকাশনা।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, সমিতির সহ সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মনিরুজ্জামান, সহ-ম্পাদক ব্যারিস্টার ইমতিয়াজ, সদস্য হুমায়ুন কবির প্রমুখ।
স্মারক গ্রন্থে বঙ্গবন্ধুর বর্নাঢ্য কর্মময় জীবন, বাঙালির জাতিসত্ত্বার আত্বপ্রকাশে তার রাজনৈতিক সংগ্রাম, আত্মত্যাগ এবং স্বনির্ভর বাংলাদেশ বিনির্মানে তার স্বপ্নের বিভিন্ন দিক নিয়ে বিশ্লেষনমূলক ও স্মৃতিচারণমূলক লেখা তুলে ধরা হয়েছে।

এতে যাদের লেখা প্রকাশিত হয়েছে তারা হলেন- বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, শেখ রেহানা, বিচারপতি ইমান আলী, আপিল বিভাগের বিচারপতি মো. নুরুজ্জামান, বিচারপতি ওবায়দুল হাসান, রেলমন্ত্রী অ্যাডভোকেট মো. নুরুল ইসলাম সুজন, মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ মন্ত্রী অ্যাডভোকেট শ. ম. রেজাউল করিম, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নুর তাপস, বিমান ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী, হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি এম. ইনায়তেুর রহিম, সাবেক আইনমন্ত্রী আবদুল মতিন খসরু, সাবেক বিচারপতি এএইচএম শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক, বার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন, আবদুল বাসেত মজুমদার, সৈয়দ রেজাউর রহমান, ড. হারুন-অর-রশিদ, অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান, ঢাবির সাবেক উপাচার্য আআমস আরেফিন সিদ্দিক, অধ্যাপক ড. মিজানুর রহমান, সাংবাদিক হারুন হাবিব, কাশেম হুমায়ুন, মোহাম্মদ মঞ্জুরুল ইসলাম, মো. মনিরুজ্জামান, ইমতিয়াজ ফারুক, মোহাম্মদ বাকির উদ্দিন ভুইয়, মো. হুমায়ুন কবির ও মোহাম্মদ মশিউর রহমান।

গ্রন্থটিতে শাসনতন্ত্র নিয়ে পাকিস্তান আইন পরিষদে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের ভাষণ, আগরতলা ষডযন্ত্র মামলায় তার জবানবন্দি, খসড়া সংবিধান প্রসঙ্গে গনপরিষদে বঙ্গবন্ধুর ভাষণসহ বেশ কিছু বিষয় উল্লেখিত হয়েছে। পাশাপাশি ১৯৭১ সালের ডিসেম্বর ও ১৯৭২ সালের জানয়ারিতে যখন জাতির পিতাকে পাকিস্তান মুক্তি দিতে তালবাহান করে তখন তৎকালীন ঢাকা হাইকোর্ট বার অ্যাসোসিয়েশন কর্তৃক গ্রহণ করা গুরুত্বপূর্ণরেজুলেশনের বিষয়টিও এ গ্রন্থে স্থান পেয়েছে। একইসাথে ১৯৭২ সালের ১৮ ডিসেম্বর বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট উদ্বোধনী ভাষণের পুরো অংশ এতে সংযোজন করা হয়েছে।

সুপ্রিম কোর্ট বারের এক বিবৃতিতে বলা হয়, জাতির পিতার স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন হিসেবে তাকে আরো বেশি করে জানার প্রয়াসে এ স্মারকগ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে। সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির ইতিহাসে সবচেয়ে সমৃদ্ধ গ্রন্থ এটি। এ গ্রন্থ প্রকাশের মধ্য দিয়ে জাতির পিতার প্রতি দায়শোধের এক ধরনের চেষ্টা করা হয়েছে বলেও বিবৃতিতে বলা হয়েছে।

অনুষ্ঠান শেষে দেশজুড়ে হেফাজতের হামলা-ভাংচুরে বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে অ্যাটর্নি জেনারেল এএম আমিন উদ্দিন বলেন, তাদের বিরুদ্ধে যদি কঠোর ব্যবস্থা না নেওয়া হলে, দেশ থেকে তো আইনটাই চলে যাবে।