নিম্ন আয়ের মানুষের কাছে ন্যায্যমূল্যে বিক্রির জন্য বরাদ্দ দেওয়া খাদ্যসামগ্রী কালোবাজারে বিক্রির অভিযোগে নয়জনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)-৪। বৃহস্পতিবার রাত থেকে শুক্রবার ভোর পর্যন্ত রাজধানীর মাটিকাটা এলাকায় এ অভিযান চালানো হয়। এ সময় ন্যায্যমূল্যের ৭৭০ বস্তা চাল ও ১৬০ বস্তা আটা জব্দ করা হয়।

গ্রেপ্তাররা হলেন, আবদুল কাদের শিকদার, অমি ইসলাম, আবদুল বারেক, কামাল হোসেন, উজ্জ্বল হোসেন, মো. শাহীন, মো. জুয়েল, মো. জাবেদ ও মো.সালমান।

র‌্যাব-৪ এর সহকারী পরিচালক (গণমাধ্যম) এএসপি জিয়াউর রহমান চৌধুরী জানান, গোপনসূত্রে জানা যায় ক্যান্টনমেন্ট থানার মাটিকাটা এলাকায় ন্যায্যমূল্যের খাদ্যসামগ্রী কালোবাজারে বিক্রি করা হচ্ছে। এরপর বৃহস্পতিবার রাত ১১টার দিকে র‌্যাব-৪ এর একটি দল ওই এলাকায় অবস্থান নেয়। ভোর ৫টা পর্যন্ত ওই এলাকায় অভিযান চালিয়ে মোট ৩১ হাজার ৩০০ কেজি চাল, আট হাজার কেজি আটা, তিনটি ট্রাক, দুটি ওজন মাপার মেশিন ও একটি বস্তা সেলাইয়ের মেশিন জব্দ করা হয়। অভিযানে কালোবাজারি চক্রের নয়জনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারদের জিজ্ঞাসাবাদের বরাত দিয়ে র‌্যাব জানায়, চক্রটি দীর্ঘদিন ধরে ন্যায্যমূল্যের চাল ও আটা কালোবাজারে বিক্রি করে আসছিল। তারা কৌশলে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে ন্যায্যমূল্যের চাল-আটা সংগ্রহ করত। পরে তা ঢাকা ও আশপাশের এলাকায় বিক্রি করা হত।

র‌্যাব জানায়, করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় ঢাকাসহ সারাদেশে নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য ন্যায্যমূল্যে খাদ্যসামগ্রী বিতরণের কার্যক্রম চলমান। এ কার্যক্রম ঘিরে যেন কোনো দুর্নীতি না হয় সে ব্যাপারে সুস্পষ্ট নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরপরও অসাধু কিছু লোক এসব খাদ্যসামগ্রী আত্মসাৎ করে কালোবাজারে বিক্রি করে দিচ্ছে। এ ধরনের অপরাধী চক্রের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে।

মন্তব্য করুন