দেশে থেকে করোনা মহামারি চলে গেলেও ডিএনসিসি ডেডিকেটেড কভিড হাসপাতাল থাকবে বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম। তিনি বলেছেন, মহামারি শেষ হলে এটি ডিএনসিসির জেনারেল হাসপাতাল হিসেবে পরিচালিত হবে, যেখানে সব ধরনের চিকিৎসাসেবা দেওয়া হবে।

সোমবার রাজধানীর মহাখালীতে ডিএনসিসির মালিকানাধীন হাসপাতালটিতে দুটি অ্যাম্বুলেন্স ও একটি লাশবাহী ফ্রিজারভ্যান উপহার দেওয়ার সময় এ কথা বলেন তিনি। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে এগুলো হস্তান্তরকালে মেয়র আতিক আরও বলেন, এই হাসপাতাল থেকে কোনো ভাড়াও নেওয়া হবে না। দুটি অ্যাম্বুলেন্স ও লাশবাহী গাড়িটির চালক এবং জ্বালানিসহ সব কিছুই ডিএনসিসি থেকে বহন করা হবে।

তিনি বলেন, এই হাসপাতালের জমি, ভবন, বিদ্যুৎ ও পানির ব্যবস্থা করেছে ডিএনসিসি। নগরবাসীর স্বাস্থ্যসেবার জন্যই ৭ দশমিক ১৭ একর জমিতে গড়ে তোলা এই মার্কেটকে হাসপাতালে রূপান্তর করা হয়েছে। এখানে ২৫৮টি দোকান বরাদ্দ দেওয়া হয়েছিল। সেই বরাদ্দ বাতিল করে তাদের টাকা ফেরত দেওয়া হচ্ছে। এক লাখ ৮০ হাজার ৫৬০ বর্গফুট আয়তনের এই মার্কেটে প্রতি মাসে ভাড়া হয় প্রায় ৭০ লাখ টাকা। এই ভাড়ার টাকাও ডিএনসিসিকে দিতে হবে না।

মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, সরকার স্বাস্থ্যবিধি মেনে দোকানপাট ও শপিং মল খুলে দিয়েছে। কিন্তু মার্কেট-শপিংমলে স্বাস্থবিধি মেনে না চললে প্রয়োজনে ওই মার্কেট বন্ধ করে দেওয়া হবে।

এ সময় ডিএনসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সেলিম রেজা, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম, হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য করুন