করোনা মহামারিতে অসহায় হয়ে পড়া ছিন্নমূল মানুষের পাশে ফের সহায়তা নিয়ে দাঁড়িয়েছে পুরান ঢাকার একদল তরুণের সংগঠন ‌'মাঞ্জা।' সোমবার সেচ্ছাসেবী এ সামাজিক সংগঠনের সদস্যরা বাহাদুর শাহ পার্ক এলাকায় ভাসমান ও ছিন্নমূল দুস্থদের মাঝে ইফতার ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেছে।

এর আগে গেল বছর শুরু হওয়া করোনা কারণে লকডাউনে ঘরবন্দি অসহায় ও দুস্থ মানুষের ঘরে ঘরে খাবার পৌঁছে দিয়ে নজরে আসে মাঞ্জার সদস্যরা। ওই সময়ে রাস্তার পাশে ফুটপাতে ভাসমান মানুষের মাঝেও খাবার বিতরণ করে পুরান ঢাকার সূত্রাপুর কেন্দ্রীক এই সংগঠনটি।

মাঞ্জার সদস্যরা জানিয়েছেন, চলমান লকডাউনে সামর্থ্যবানরা ঠিকঠাক চলতে পারলেও দেশের এক বৃহৎ জনগোষ্ঠী চরম ভোগান্তির মধ্যে দিন কাটাচ্ছে। এদের মধ্যে দিনমজুর আর ছিন্নমূল মানুষেরা বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। তাই গত বারের মত এবারও মাঞ্জা সংগঠনটি এসব ছিন্নমূল ও কর্মহীন মানুষদের পাশে এগিয়ে আসার ক্ষুদ্র প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় সোমবার পুরান ঢাকার বাহাদুর শাহ পার্কে দুস্থ ও অসহায় ছিন্নমূল ও কর্মহীন তিন শতাধিক মানুষের মাঝে ইফতার ও খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করে। পবিত্র রমজান মাসে যাতে অসহায় দরিদ্র মানুষগুলো দুমুঠো খেয়ে দিনযাপন করতে পারে সেই প্রচেষ্টা চালাচ্ছে ‌'মাঞ্জা'।

ইফতার বিতরণের সময় সংগঠনটির সদস্য মো. সাগর বলেন, গত বছর করোনা মহামারীর শুরু থেকেই তারা ছিন্নমূলদের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেছেন। নতুন করে লকডাউন দীর্ঘায়িত হওয়ায় তারা আবার অসহায়দের পাশে থাকার চেষ্টা করছেন। তাদের এই কার্যক্রম চলমান রাখার চেষ্টা করবেন।

দিগন্ত নামের অপর একজন সদস্য বলেন, শুরুর দিকে তারা সদস্যরা নিজেদের মধ্যে চাঁদা তুলে কার্যক্রম চালাচ্ছিলেন। এক পর্যায়ে পরিবার, বন্ধু এবং আপনজনরা এগিয়ে আসেন।  আর্থিক সংকটে কার্যক্রম বন্ধ থাকে। তবে সংগঠনটির অন্যতম উপদেষ্টা ব্যবসায়ী-রাজনীতিক গাজী সারোয়ার হোসেন বাবু আর্থিক সহায়তা নিয়ে তাদের পাশে দাঁড়িয়েছেন। তার সহযোগিতায় 'মাঞ্জা' নতুন করে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়াতে পারছে।

মন্তব্য করুন