সুন্দরবনে বারবার অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ক্ষোভ ও উদ্বেগ জানিয়ে এই অগ্নিকাণ্ড প্রতিরোধে কঠোর কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের দাবি জানিয়েছে বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি। একই সঙ্গে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় দায়ীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ, বনাঞ্চল সংরক্ষণ, নজরদারি বাড়ানো এবং সর্বোপরি রামপাল বিদ্যুৎ প্রকল্পসহ দক্ষিণাঞ্চলে কয়লাভিত্তিক সব বিদ্যুৎকেন্দ্র অবিলম্বে বন্ধের দাবি জানিয়েছে দলটি।

বুধবার বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক এক বিবৃতিতে এই দাবি জানান। তিনি বলেন, ৪৮ ঘণ্টার ব্যবধানে সুন্দরবনে আবারও অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। আশঙ্কা করা হচ্ছে কায়েমি স্বার্থান্বেষীরাই এসব অগ্নিকাণ্ডের জন্য দায়ী। বন বিভাগের একশ্রেণির কর্মচারীর প্রশ্রয় ও ছত্রছায়ায় এসব অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটছে বলে মনে করা হচ্ছে। বনভূমির অবৈধ দখলসহ নানা কারণে আগুন দেওয়ার ঘটনা সংঘটিত হচ্ছে। গত ২০ বছরে ২৫ বার সুন্দরবনে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় কয়েকশ একর বন পুরোপুরি পুড়ে গেছে।

তিনি বলেন, সুন্দরবন দেশের সবচেয়ে বড় ফুসফুস হিসেবে কাজ করছে। এভাবে সুন্দরবন পুড়তে থাকলে আগামী এক দশকেই সুন্দরবনের অস্তিত্বই গুরুতর হুমকির মধ্যে পড়বে।

বিবৃতিতে বলা হয়, জলবায়ুর নেতিবাচক পরিবর্তনে দেশের দক্ষিণাঞ্চল এমনিতেই লবণাক্ততাসহ বহু সংকটের মুখোমুখি। এই অবস্থায় সুন্দরবন উজাড় হতে থাকলে বাংলাদেশ ও দেশের মানুষ বড় ধরনের বিপদে নিক্ষিপ্ত হবে।

বিষয় : বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি অগ্নিকাণ্ড সুন্দরবন

মন্তব্য করুন