পেশাদার ও জনবান্ধব পুলিশের মডেল হতে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) উত্তরা বিভাগ বিভিন্ন কার্যক্রম শুরু করেছে। এরই মধ্যে ওই বিভাগে সদ্য যোগ দেওয়া উপ কমিশনার (ডিসি) মোহাম্মদ সাইফুল ইসলামের নেতৃত্বে কার্যক্রমও শুরু হয়েছে।

দীর্ঘদিন ধরে ডিএমপির জঙ্গি দমন ইউনিট-কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইমে (সিটিটিসি) দায়িত্ব পালন করে আসা পুলিশের এই কর্মকর্তা উত্তরা ক্রাইম বিভাগে যোগ দিয়েই ওই এলাকার প্রত্যেকটি থানা ও পুলিশি স্থাপনা পরিদর্শন করেন।

উত্তরা বিভাগে দায়িত্বরত বিভিন্ন স্তরের পুলিশ সদস্যদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে পেশাদার ও জনবান্ধব পুলিশিংয়ের জন্য সহকর্মীদের গুরুত্বপূর্ণ দিকনির্দেশনা দেন মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম। পরিদর্শনের সময় তিনি পুলিশ পরিদর্শক থেকে কনস্টেবল পর্যন্ত সব পুলিশ সদস্যদের সুবিধা-অসুবিধা ও মতামত শোনেন এবং সেসব বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে সিদ্ধান্ত  দেন। পুলিশ প্রধান ঘোষিত ৫ দফা নির্দেশনা মেনে চলার জন্য উত্তরা বিভাগের সকল সদস্যকে নির্দেশ দেন তিনি।

উপ কমিশনার সাইফুল ইসলাম বলেন, পুলিশের নিকট আগত সেবা প্রত্যাশীরা যেন সহযোগিতাপূর্ণ আচরণ এবং দ্রুত সেবা পেতে পারেন-তিনি সেই চেষ্টা করছেন। এজন্য তার বিভাগের আওতাধীন প্রত্যেকটি থানা ও পুলিশ স্থাপনা পরিদর্শন করে সহকর্মীদের সেই বার্তা দিয়েছেন।

জনগণের জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের ক্ষেত্রে কোন পক্ষ অবলম্বন না করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নির্দেশ দিয়ে তিনি বলেন, ফৌজদারী অপরাধে কোনো পুলিশ সদস্য যাতে সম্পৃক্ত না হয়, সে বিষয়ে সকলকে সর্তক কররা হয়েছে। মাদক, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও চাঁদাবাজীর প্রতি জিরো টলারেন্স নীতি বাস্তবায়নে সহকর্মীদের কঠোর হতে বলেছেন তিনি।

পুলিশ কর্মকর্তা সাইফুল বলেন, বর্তমান সময়ে পুলিশ পেশাদারী ও জনবান্ধব হয়ে দায়িত্ব পালন করছে। ডিএমপির উত্তরা বিভাগকে একটি চৌকষ ও পেশাদার বিভাগ হিসেবে গড়ে তুলতে তিনি কাজ করে যাবেন।