তুচ্ছ ঘটনার জেরে গৃহকর্মীর শরীরে গরম মাড় ঢেলে ঝলসে দিয়েছেন তানজিনা রহমান সুরভি নামে এক শিক্ষানবিশ আইনজীবী। যন্ত্রণায় ছটফট করতে থাকা মেয়েটিকে তিনি বা পরিবারের কেউ হাসপাতালেও নেননি। প্রায় এক সপ্তাহ ধরে তাকে বাসায় আটকে রেখে কোনো রকম চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছিল না। পরে প্রতিবেশীদের একজন মেয়েটির কান্না সইতে না পেরে বিষয়টি জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ নম্বরে ফোন করে জানান। এরপর শুক্রবার রাজধানীর উত্তরা-৯ নম্বর সেক্টরের ওই বাসা থেকে দগ্ধ গৃহকর্মী নিশা আক্তারকে উদ্ধার করে পুলিশ।

উত্তরা পশ্চিম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ মোহাম্মদ আখতারুজ্জামান ইলিয়াস সমকালকে বলেন, অভিযুক্ত সুরভিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তার দাবি, ‘মেজাজ নিয়ন্ত্রণ’ করতে না পারায় তিনি এমন ঘটনা ঘটিয়েছেন। পুলিশ ভুক্তভোগীর চিকিৎসার ব্যবস্থা করেছে। পাশাপাশি ঘটনাটি তদন্ত করে দেখছে।

পুলিশ ও হাসপাতাল সূত্র জানায়, বছরখানেক ধরে ওই বাসায় গৃহকর্মী হিসেবে কাজ করে আসছিলেন ১৮ বছর বয়সী নিশা। এরমধ্যে গত ৬ জুন গৃহকর্তার মেয়ে সুরভি তার কাছে কাপড় ধোয়ার ওয়াশিং পাউডার চান। নিশা জানান, বাসায় পাউডার নেই। তখন তাকে দোকানে গিয়ে পাউডার কিনে আনতে বলা হয়। এতে বিলম্ব করায় তার গায়ে গরম মাড় ঢেলে দেন সুরভি।

এদিকে দগ্ধ গৃহকর্মীকে উদ্ধার করে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসকরা জানান, তার গলা ও কাঁধসহ শরীরের পাঁচ ভাগ পুড়ে গেছে। তবে তিনি শঙ্কামুক্ত। প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) নেওয়া হয়েছে।

৯৯৯ এর ফোকাল পারসন (গণমাধ্যম) পুলিশ পরিদর্শক আনোয়ার সাত্তার জানান, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে উত্তরা-৯ নম্বর সেক্টরের ৭/সি সড়কের ২০ নম্বর বাড়ি থেকে ফোন করে একজন বলেন, সেখানে এক গৃহকর্মীকে প্রচণ্ড মারধর ও গরম পানি ঢেলে নির্যাতন করা হয়েছে। আহত মেয়েটিকে একটি কক্ষে আটকে রেখেছে তারা। তিনি গৃহকর্মীর আর্তনাদ ও কান্নার আওয়াজ শুনতে পাচ্ছিলেন। ৯৯৯ থেকে তাৎক্ষণিকভাবে বিষয়টি উত্তরা পশ্চিম থানায় জানিয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ করা হয়। এরপর উত্তরা পশ্চিম থানার একটি দল ঘটনাস্থলে যায়।

উত্তরা পশ্চিম থানার উপপরিদর্শক (এসআই) কাঞ্চন রায়হান জানান, ৯৯৯ থেকে তথ্য পেয়ে তারা ওই গৃহকর্মীকে উদ্ধার করেন। প্রাথমিকভাবে মেয়েটির শরীরে গরম পানি বা এ জাতীয় কিছু ঢেলে দেওয়ার কথা জানা গেছে। প্রকৃতপক্ষে কী ঘটেছে, তা তদন্তে বেরিয়ে আসবে।

বিষয় : গৃহকর্মী নির্যাতন রাজধানী

মন্তব্য করুন