পটুয়াখালীতে দুমকিতে মেয়ের জামাইয়ের হাতে শাশুড়ি মোমেনা বেগম (৫০) খুন হয়েছেন। শনিবার রাত দেড়টার দিকে উপজেলার মুরাদিয়া ইউনিয়নের কুতুবকাঠি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। 

নিহত মোমেনা বেগম ওই গ্রামের কাঞ্চন গাজীর স্ত্রী। রোববার দুপুর ১টার দিকে পুলিশ একই উপজেলার চরগরবদী এলাকা থেকে ঘাতক জামাতা জামালকে আটক করেছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। 

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, মোমেনা-কাঞ্চন দম্পতির মেয়েকে বেশ কিছু দিন পূর্বে বিয়ে দেওয়া হয় চাঁদপুরের কচুয়া এলাকার মো. জামাল হোসেনের সঙ্গে। বিয়ের পর থেকে মেয়ের জামাই শ্বশুড় বাড়িতেই থাকতো। গত কয়েক দিন আগে হঠাৎ জামালের মানসিক সমস্যা দেখা দেয় এবং রাতে না ঘুমিয়ে ঘরের ভিতর হাঁটা চলা করতো। ঘটনার দিনও রাতে না ঘুমিয়ে মেয়ের জামাই জামাল হোসেন একইভাবে ঘরের মধ্যে হাঁটাহাঁটি করতে থাকেন। এ সময় শাশুড়ি মোমেনা বেগম জামালকে ঘুমাতে বলেন। এতে জামাই জামাল ক্ষিপ্ত হয়ে দা দিয়ে শাশুড়িকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। তাকে মূমূর্ষু অবস্থায় বরিশাল শেরে-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে ভোরে তার মৃত্যু হয়। 

দুমকি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. মেহেদী হাসান বলেন, জামাল হোসেনের হাতে খুন হন শাশুড়ি মোমেনা বেগম। জামাল একজন মানসিক রোগী। রাত ৩টার দিকে খবর পেয়ে রক্তাক্ত শাশুড়িকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং পরে বরিশালে পাঠিয়ে দেই। ঘাতক জামাতা জামালকে দুপুরের দিকে একই উপজেলার চরগরবদী এলাকা থেকে আটক করা হয়েছে।          ​

বিষয় : পটুয়াখালী শাশুড়ি

মন্তব্য করুন