করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধির মধ্যেই রাজধানীতে প্রতিদিনই বাড়ছে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা। পুরান ঢাকায় ডেঙ্গুবাহী এডিস মশার বিস্তার রোধে মাঠে নেমেছে স্বেচ্ছাসেবী তরুণেরা। শুক্রবার সূত্রাপুর এলাকার স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন 'মাঞ্জা' সদস্যরা মশক নিধনে ওষুধ ছিটানো শুরু করেছে। পাশাপাশি ডেঙ্গু প্রতিরোধে পরিচ্ছন্নতা অভিযান ও পাড়া-মহল্লার লোকজনকেও সচেতন করছে সংগঠনটির সদস্যরা।

শুক্রবার মশক নিধনের কার্যক্রম উদ্বোধন করেন সংগঠনটির উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য ও বাংলাদেশ ফার্টিলাইজার অ্যাসোসিয়েশনের নির্বাহী সচিব রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ(রিন্টু)। তিনি বলেন, করোনাভাইরাস ও ডেঙ্গু প্রতিরোধে সবার নিজ নিজ জায়গা সচেতন হতে হবে। তাহলেও সব ধরনের মহামারি থেকে রক্ষা পাওয়া সম্ভব।

ডেঙ্গু নিধন কর্মসূচিতে অংশ নেওয়া 'মাঞ্জা'র স্বেচ্ছাসেবকরা জানান, সিটি কর্পোরেশনসহ সরকারি সেবা সংস্থাগুলোর দিকে তারা না তাকিয়ে নিজেরাই নিজেদের এলাকা ও আশপাশের এলাকায় ডেঙ্গুর প্রজনন বন্ধে কার্যক্রম শুরু করেছেন। নিজ বাড়ি বা বাসার আশপাশে প্রতিদিন অন্তত পাঁচ মিনিট পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম চালালেই ডেঙ্গুর প্রজনন বন্ধ করা সম্ভব।

সংগঠনটির একজন সদস্য শহিদুল ইসলাম সাজ্জাদ বলেন, তারা তাদের সংগঠনের পক্ষ থেকে কয়েকদিন ধরে এলাকাবাসীকে ডেঙ্গু সম্পর্কে সচেতন করতে মাইকিংসহ নানা কার্যক্রম চালিয়ে আসছিলেন। ডেঙ্গু প্রতিরোধে কি করতে হবে, ডেঙ্গু হলে কি করতে হবে- এ সম্পর্কে মানুষকে বুঝিয়েছেন তারা। শুক্রবার সূত্রাপুরের বিভিন্ন মসজিদ ও বাড়ির গেটে এ সংক্রান্ত লিফলেটও বিতরণ করেছেন।