রাজধানীর ফার্মগেট এলাকায় বাসচাপায় শহীদুল ইসলাম নিরব (৩২) নামে এক ক্রিকেটার নিহত হয়েছেন। শুক্রবার সন্ধ্যায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত নিরব কলাবাগান ক্রীড়া চক্রের প্রথম বিভাগের খেলোয়াড় ছিলেন। দুই ভাই তিন বোনের মধ্যে তৃতীয় ছিলেন শহীদুল

তেজগাঁও থানার ওসি মো. সালাহউদ্দিন সমকালকে বলেন, সন্ধ্যা ৭টার দিকে কারওয়ানবাজার এলাকা থেকে ফার্মগেটের দিকে যাচ্ছিলেন নিরব। তার মোটরসাইকেলে নবীন নামে আরেক আরোহী ছিলেন। ডেইলি স্টার ভবনের সামনে তাদের মোটরসাইকেলকে পাশ থেকে ধাক্কা দেয় একটি যাত্রীবাহী বাস। তখন মোটরসাইকেলের চাকা রাস্তার পাশের গর্তে নেমে গেলে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে তারা রাস্তায় ছিটকে পড়েন। তাদের মধ্যে নবীন পড়েন বামে ও নিরব ডানে। তার শরীর বাসটির পেছনের চাকায় পিষ্ট হয়। পুলিশ তাদের উদ্ধার করে শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে চিকিৎসক পরীক্ষা করে নিরবকে মৃত ঘোষণা করেন। তার বাবার নাম আবুল কালাম খান। আহত অপরজনের চিকিৎসা চলছে।

ওসি জানান, দুর্ঘটনায় দায়ী বাসটি বিমানবন্দর থেকে ফার্মগেট ও বঙ্গবন্ধু এভিনিউ হয়ে কেরানীগঞ্জে চলাচল করে। ঘটনার পরপরই চালক বাস থামিয়ে পালিয়ে যান। তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। নিরবের মোটরসাইকেলটি মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এ ঘটনায় একটি মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে। তদন্তের প্রয়োজনে ঘটনাস্থলের আশেপাশের ভবন থেকে সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করছে পুলিশ। সেগুলো পর্যালোচনা করে ঘটনার ব্যাপারে আরও স্পষ্ট ধারণা পাওয়া যাবে। প্রাথমিকভাবে এক নারী প্রত্যক্ষদর্শী পুলিশকে ঘটনার ব্যাপারে জানিয়েছেন।

নিহতের ছোট ভাই সাগর খান সমকালকে জানান, কেরানীগঞ্জের আটিবাজার এলাকায় পরিবারের সঙ্গে থাকতেন নিরব। বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়ে তিনি নানারকম টুর্নামেন্টে খেলতেন। শুক্রবার সন্ধ্যায় তিনি ওষুধ কেনাসহ কিছু ব্যক্তিগত প্রয়োজনে ফার্মগেট এলাকায় যাচ্ছিলেন। সেখান থেকে তার বাসায় ফেরার কথা ছিল। কিন্তু পথেই এ দুর্ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে তারা ছুটে আসেন। কিন্তু ভাইকে আর জীবিত দেখতে পাননি। ওই ঘটনায় আহত নবীন তাদের পরিচিত বড় ভাই। তার আঘাত গুরুতর নয়। পারিবারিক সূত্র জানায়, নিরবের স্ত্রীর নাম মৌ খান। আদিব নামে এই দম্পতির তিন বছর বয়সী একটি ছেলে রয়েছে।