ফরিদপুরে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্যে দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন উদযাপন করেছেন জেলা আওয়ামী লীগ ও তার সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। মঙ্গলবার সকালে এ উপলক্ষে আনন্দ মিছিল, কেক কাটা, আলোচনা সভাসহ বিভিন্ন কর্মসূচিতে মুখরিত হয়ে উঠে শহরের মুজিব সড়ক।

শহরের থানা মোড়ে আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুলেল শ্রদ্ধা জানিয়ে এ কর্মসূচি শুরু করা হয়। পরে শহরের প্রধান সড়কে কয়েকটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করেন নেতাকর্মীরা। র‌্যালি শেষে ফরিদপুর প্রেস ক্লাব চত্বরে জেলা, শহর ও কোতোয়ালি থানা আওয়ামী লীগের ৭৫ পাউন্ডের তিনটি কেক কাটা হয়।

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে আনন্দ মিছিল করছেন ফরিদপুর জেলা আওয়াম লীগের সভাপতি সুবল চন্দ্র সাহা, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মাসুদ হোসেন, সিনিয়র সহ-সভাপতি শামিম হক, সহ-সভাপতি ও এফবিসিসিআই-এর সাবেক সভাপতি এ. কে. আজাদসহ অন্যান্যরা, ছবি: সমকাল

এসময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়াম লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুবল চন্দ্র সাহা, সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ মাসুদ হোসেন, সিনিয়র সহ-সভাপতি শামিম হক, সহ-সভাপতি ও এফবিসিসিআই-এর সাবেক সভাপতি এ. কে. আজাদ, যুবলীগের সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য ফারুক হোসেন, কোতোয়ালি আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক মোল্লা, সাধারণ সম্পাদক সামচুল আলম চৌধুরী, শহর আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক মনিরুল হাসান মিঠু, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ঝর্না হাসান, মাইনউদ্দিন আহমেদ মানু, সাংগঠনিক সম্পাদক কেএম সেলিম, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক আইভী মাসুদ, ফরিদপুর পৌরসভার মেয়র অমিতাভ বোস, জেলা আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট জাহিদ ব্যাপারী, দপ্তর সম্পাদক অ্যাডভোকেট অনিমেষ রায়, জেলা আওয়ামী লীগ সদস্য আবু নাঈম, উপ-দপ্তর সম্পাদক সোহেল রেজা বিপ্লব, শহর আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক সাহিদউদ্দীন আহমেদ, মনিরুজ্জামান মনির, অ্যাডভোকেট বদিউজ্জামান বাবুল, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি শওকত আলী জাহিদ, জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি আক্কাস হোসেন, কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট প্রদীপ দাস লক্ষণ, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি তামজিদুর রশিদ রিয়ানসহ সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

প্রেস ক্লাব চত্বরে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় নেতৃবৃন্দ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করেন।

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনের কেক কাটছেন জেলা আওয়াম লীগের সভাপতি সুবল চন্দ্র সাহা, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মাসুদ হোসেন, সিনিয়র সহ-সভাপতি শামিম হক, সহ-সভাপতি ও এফবিসিসিআই-এর সাবেক সভাপতি এ. কে. আজাদসহ অন্যান্যরা, ছবি: সমকাল

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুবল চন্দ্র সাহা বলেন, আওয়ামী লীগ প্রতিষ্ঠার পর থেকেই দলটি গণমানুষের জন্য সংগ্রাম করে আসছে। আজ জননেত্রী শেখ হাসিনার সুযোগ্য নেতৃত্বে সেই সংগ্রামের সুফল আমরা পাচ্ছি। আমরা তার নেতৃত্বে উন্নত বাংলাদেশ গড়ে তুলতে চাই।

সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মাসুদ হোসেন বলেন, একমাত্র জননেত্রী শেখ হাসিনাই দেখিয়েছেন, দিনক্ষণ ঠিক করে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করে একটি দেশকে কীভাবে উন্নতির শিখরে নিয়ে যাওয়া যায়। আমরা তার দীর্ঘায়ু কামনা করি।

সিনিয়র সহ-সভাপতি শামিম হক বলেন, মাদার অব হিউম্যানিটি খ্যাতি আর কোনো রাষ্ট্রনায়ক পাননি। আমরা এ জন্য জননেত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে গর্ববোধ করি। তার নেতৃত্বে আমরা সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ে তুলতে কাজ করে যাচ্ছি।

জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও এফবিসিসিআই-এর সাবেক সভাপতি এ. কে. আজাদ বলেন, একটি শোষণহীন সমাজ দেখতে চেয়েছিলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তারই সুযোগ্য কন্যা সেই স্বপ্ন বাস্তবে রূপ দিয়ে যাচ্ছেন। আমরা তার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করি। তার নেতৃত্বে আমরা শোষণহীন ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ গড়ে তুলতে চাই।