'টেস্ট ড্রাইভ' বা চালিয়ে পরীক্ষা করে দেখার নামে মোটরসাইকেল নিয়ে পালানোর ঘটনায় পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে রাজধানীর চকবাজার থানা পুলিশ। তারা হলো-মো. শাওন, আসাদুজ্জামান শেখ, রবিন শেখ, আলমগীর হোসেন ওরফে মিল্লাত ও এক কিশোর। ধারাবাহিক অভিযানে ঢাকার বনশ্রী, কিশোরগঞ্জ ও নরসিংদী থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। এ ঘটনায় চুরি হওয়া মোটরসাইকেলটিও উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ।

চকবাজার থানার ওসি আবদুল কাইউম জানান, মামলার বাদী এক যুবক গত ১০ সেপ্টেম্বর একটি সুজুকি জিকসার সিঙ্গেল ডিপ মোটরসাইকেল বিক্রির জন্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিজ্ঞাপন দেন। এর সূত্র ধরে ১৬ সেপ্টেম্বর শাওন নামে এক যুবক বংশালের নবকুমার ইনস্টিটিউটের মাঠে সেটি কেনার জন্য যায়। তখন সে মোটরসাইকেলটি চালিয়ে পরীক্ষা করে নেওয়ার কথা বলে। এতে বিক্রেতা রাজি হলে সে মোটরসাইকেল নিয়ে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় ৪ অক্টোবর চকবাজার থানায় একটি মামলা হয়।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত বিশ্নেষণ করে ৫ অক্টোবর রাত পৌনে ১টায় বনশ্রী এলাকা থেকে শাওনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তার তথ্যমতে ওই রাতেই গ্রেপ্তার করা হয় আসাদুজ্জামান শেখ ও রবিন শেখকে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, চুরি করা মোটরসাইকেলটি ৬৩ হাজার টাকায় কিশোরগঞ্জের আলমগীর হোসেন ওরফে মিল্লাতের কাছে বিক্রি করা হয়েছে। এরপর অভিযান চালিয়ে কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর এলাকা থেকে মিল্লাতকে গ্রেপ্তার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সে জানায়, ৮৭ হাজার টাকায় নরসিংদীর এক কিশোরের কাছে সেটি বিক্রি করেছে। পরে ৭ অক্টোবর দুপুরে নরসিংদীর চিনিশপুর জামতলা থেকে ওই কিশোরকে নিরাপত্তা হেফাজতে নেওয়া হয়। এ সময় তার কাছ থেকে মোটরসাইকেলটি উদ্ধার করা হয়।