রাজধানীর খিলক্ষেতের একটি মেস থেকে এক চিকিৎসকের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার রাতে মরদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়। তার নাম ডা. মাহফুজা আক্তার মুন্নি (২৫)।

মুন্নির স্বজনরা জানান, মুন্নি ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ থেকে এমবিবিএস পাশ করে বর্তমানে এফসিপিএসের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। খিলক্ষেত নিকুঞ্জের তিন নম্বর সড়কের একটি ভবনে কয়েকজন নারী চিকিৎসক মেস করে থাকতেন। মুন্নি থাকতেন ৬ষ্ঠ তলায়। তার রুমমেট গ্রামের বাড়ি যাওয়ায় তিনি একাই থাকতেন। শনিবার রাতে কক্ষের লোহার এঙ্গেলের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস দেন তিনি। তার আত্মহত্যার কারণ সম্পর্কে কেউ কিছুই জানাতে পারেনি।

মুন্নির বাবার নাম নুর আহমেদ খান। বাসা রাজধানীর কদমতলীর উত্তর মুরাদপুরে। নুর আহমেদ জানান, তার মেয়ে এবার বিসিএস পরীক্ষা দিয়েছিলেন। কিন্তু কৃতকার্য হননি।

খিলক্ষেত থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) সাবরিনা রহমান মৌরী বলেন, ধারণা করা হচ্ছে, পড়াশোনার চাপে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছেন ওই চিকিৎসক। তবে মৃত্যুর কারণ ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পর নিশ্চিত হওয়া যাবে।