ঢাকার গাবতলী সংলগ্ন তুরাগ নদে ট্রলারডুবির ঘটনায় মা ও মেয়ের মরদেহ উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ। এ নিয়ে এ দুর্ঘটনায় মোট সাতজনের মরদেহ উদ্ধার করা হলো। 

নৌ পুলিশের আমিনবাজার থানার ওসি আলমগীর শেখ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। 

ফায়ার সার্ভিস নিয়ন্ত্রণ কক্ষের কর্মকর্তা রাশেদ বিন খালিদ জানান, ট্রলারডুবির পর পাঁচজনের মরদেহ পাওয়া গেলেও দুইজন নিখোঁজ ছিল। রূপায়ন বেগমের (৩০) মরদেহ সোমবার বেলা ১১টার দিকে আমিন বাজার সেতুর নিচে ভেসে ওঠে। আর নৌ পুলিশ মুন্সিগঞ্জের মুক্তার পুর থেকে ৩ বছর বয়সী জেসমিনের মরদেহ উদ্ধার করে।

গত শনিবার সকালে ট্রলারে করে তুরাগ পার হয়ে গাবতলীর দিকে যাচ্ছিলেন ১৮ যাত্রী।  ট্রলারটি একটি বালুবাহী নৌযানের নিচে চলে যায় এবং ডুবে যায়। দিনভর অভিযানে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা সেদিন মোট পাঁচজনের মরদেহ উদ্ধার করেন।

ওই দুর্ঘটনার পর সাভার থানায় মামলা করা হয়েছে বলে নৌপুলিশ কর্মকর্তা আলমগীর শেখ জানান।