আফগানিস্তান থেকে মার্কিন বাহিনীর প্রত্যাহারের শেষ সময়ে ভুল করে মার্কিন ড্রোন হামলায় সাত শিশুসহ ১০ জন নিহত হওয়ার ঘটনায় তাদের স্বজনদের ক্ষতিপূরণ বা খেসারত দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। তবে ক্ষতিপূরণের অর্থের পরিমাণ উল্লেখ করেনি দেশটি।

শুক্রবার এক বিবৃতিতে পেন্টাগন এও বলেছে, নিহতদের আত্মীয়স্বজন, যারা তালেবান শাসিত আফগানিস্তান ত্যাগ করতে চায়, তাদের শনাক্ত করার জন্য পেন্টাগন মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের সঙ্গে কাজ করছে। খবর এএফপি ও আলজাজিরার

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা বিভাগের পলিসি বিষয়ক আন্ডার সেক্রেটারি কলিন কাহল এবং আফগানিস্তানে সক্রিয় এইড গ্রুপ নিউট্রেশন অ্যান্ড অ্যাডুকেশন ইন্টারন্যাশনালের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি স্টিভেন কোয়ানের মধ্যে বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

কাবুল থেকে মার্কিন প্রত্যাহারের সবচেয়ে বেশি গোলযোগের সময় ২৯ আগস্ট এই সংস্থার কর্মী এজমারাই আহমাদিকে ভুল করে ইসলামিক স্টেটের জঙ্গি হিসেবে চিহ্নিত করেন মার্কিন গোয়েন্দারা। মার্কিন ড্রোন থেকে মিসাইল হামলার আট ঘণ্টা আগে তারা একটি সাদা টয়োটা গাড়ি অনুসরণ করে এবং পরে  আইএসআই সন্দেহে মিসাইল হামলা চালায়। এতে সাত শিশুসহ ১০ জনের মৃত্যু হয়। এদের মধ্যে আহমাদিও ছিলেন।

যুক্তরাষ্ট্রের সেন্ট্রাল কমান্ড কমান্ডার জেনারেল কেনেথ ম্যাকেঞ্জি বলেন, আমেরিকান গোয়েন্দারা কাবুল বিমানবন্দরের কাছে একটি গাড়ি দেখতে পান এবং তারা ধারণা করেন, আইএস কাবুল বিমানবন্দরে হামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে। পরে গত মাসে যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা বুঝতে পারেন, ওই ড্রোন হামলাটি আসলে ভুল ছিল।