করোনা পরীক্ষার দুই কোটি ৫৮ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে খুলনা জেনারেল হাসপাতাল ল্যাবের মেডিকেল টেকনোলজিস্ট প্রকাশ কুমার দাসের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।  বৃহস্পতিবার দুপুরে দুদকের খুলনা জেলা কার্যালয়ের উপ-সহকারী পরিচালক খন্দকার কামরুজ্জমান বাদি হয়ে মামলাটি করেছেন।

কামরুজ্জমান জানান, করোনা রোগীদের পরীক্ষা ও বিদেশগামী যাত্রীদের করোনা পরীক্ষার ফি আদায়ের দায়িত্বে ছিলেন ল্যাব টেকনোলজিস্ট প্রকাশ কুমার দাস। তিনি ২০২০ সালের জুলাই থেকে ২০২১ সালের জুলাই পর্যন্ত চার কোটি ২৪ লাখ ৯৩ হাজার ৯০০ টাকা ফি আদায় করেন। কিন্তু সরকারি কোষাগারে জমা দেন এক কোটি ৬৬ লাখ ৯৬ হাজার ৭০০ টাকা। অবশিষ্ট দুই কোটি ৫৮ লাখ ৯৭ হাজার ২০০ টাকা সরকারি কোষাগারে জমা না দিয়ে আত্মসাৎ করেছেন। 

বিষয়টি জানার পর খুলনার সিভিল সার্জন ডা. নিয়াজ মোহাম্মদ গত ২৭ সেপ্টেম্বর খুলনা সদর থানায় জিডি করেন। পরে জিডি কপিসহ দুদকে লিখিত অভিযোগ করেন। এরপর প্রধান কার্যালয়ের অনুমোদন নিয়ে বৃহস্পতিবার দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনে মামলাটি করা হয়। 

উল্লেখ্য, চলতি বছরের সেপ্টেম্বর মাস থেকে প্রকাশ কুমার দাস কর্মস্থলে অনুপস্থিত এবং আত্মগোপনে আছেন। এই ঘটনার সঙ্গে অন্য কেউ জড়িত আছে কিনা এবং আত্মসাৎ করা টাকার পরিমাণ আরও বেশি কিনা তা দুদক তদন্ত করে দেখবে।