সরকারি কর্মকর্তাদের বিদেশ ভ্রমণের ক্ষেত্রে সংশ্নিষ্ট মন্ত্রণালয়সহ অর্থ মন্ত্রণালয় ও মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অনুমতি লাগবে। এক মামলায় হাইকোর্টের দেওয়া পূর্ণাঙ্গ রায়ে এই তথ্য উল্লেখ রয়েছে।

বিচারপতি জুবায়ের রহমান চৌধুরী ও বিচারপতি কাজী জিনাত হক সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চের স্বাক্ষরের পর বুধবার ১৪ পৃষ্ঠার এ রায় প্রকাশ করা হয়।

আদালতের পর্যবেক্ষণে বলেন, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কেনাকাটা করতে বিদেশ ভ্রমণের জন্য সংশ্নিষ্ট মন্ত্রণালয়ের পাশাপাশি অর্থ মন্ত্রণালয় ও মন্ত্রিপরিষদ বিভাগকে জানাতে হবে। রাষ্ট্রের অর্থ অপচয় রোধ করতে এই নির্দেশনা দেওয়া হয় বলেও রায়ে বলা হয়েছে।

আদালতে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশনের (বিআইডব্লিউটিসি) পক্ষে ছিলেন আইনজীবী সাইফুর রশিদ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল শেখ সাইফুজ্জামান।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১৫ সালে বিআইডব্লিউটিসি ৬ কোটি টাকার ফগ লাইট কিনতে যুক্তরাষ্ট্রে যান প্রতিষ্ঠানটির তৎকালীন চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান, পরিচালক জ্ঞান রঞ্জন শীল, জিএম ক্যাপ্টেন শওকত সরদার ও নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব পংকজ কুমার পাল। তাদের মধ্যে প্রকৌশলী ছিলেন মাত্র একজন। তারা ৬ কোটি টাকা দিয়ে ১০টি ফগ লাইট কেনেন, কিন্তু সেগুলো ছিল নিম্নমানের। পরে এ বিষয়ে করা এক রিটের শুনানি নিয়ে রুল জারি করা হয়। গত বছরের ১৭ ডিসেম্বর রুলের শুননি নিয়ে তা খারিজ করে রায় দেন হাইকোর্ট। এরই ধারাবাহিকতায় বুধবার পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ করা হয়।