নিরাপদ সড়কের দাবিতে রোববার রাজধানীর শাহবাগ থেকে প্রতীকী লাশের মিছিল এবং সারাদেশে মানববন্ধনের ঘোষণা দিয়েছেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

শনিবার রাজধানীর রামপুরা ব্রিজ এলাকায় অবস্থান নিয়ে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

আন্দোলনরতদের পক্ষে স্টেট ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী ইনজামুল হক রামিম বলেন, নয় দফা দাবিতে আমরা আগামীকাল শাহবাগ থেকে প্রতীকী লাশের মিছিল করব। পাশাপাশি সারাদেশে শিক্ষার্থীরা তাদের সুবিধামতো সময়ে শান্তিপূর্ণ মানববন্ধন করবে।

এই ৯ দফা দাবি পূরণ না হলে আগামী ১০ ডিসেম্বর মহাসমাবেশের মাধ্যমে সারাদেশে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলা হবে বলেও জানান শিক্ষার্থীরা।

এর আগে, সকাল সাড়ে ১১টার দিকে কয়েকটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা রামপুরা ব্রিজের পাশে ফুটপাতে অবস্থান নেন। পরে সড়কের অনিয়ম দুর্নীতির প্রতিবাদে তারা লাল কার্ড প্রদর্শন করেন। 

সরকার বাসের ভাড়া বাড়ানোর পর থেকে শিক্ষার্থীরা আগের মত অর্ধেক ভাড়া দেওয়ার দাবিতে আন্দোলন করে আসছে। প্রতিদিনই তারা বিভিন্ন এলাকায় সড়ক আটকে বিক্ষোভ দেখাচ্ছে। গত ২৪ নভেম্বর সিটি করপোরেশনের গাড়ির ধাক্কায় নটর ডেম কলেজের এক শিক্ষার্থী এবং ২৯ নভেম্বর রাতে রামপুরায় বাসের চাপায় এক এসএসসি পরীক্ষার্থী নিহত হওয়ায় শিক্ষার্থীদের ক্ষোভ আরও বাড়ে। ঢাকা পরিবহন মালিক সমিতি মঙ্গলবার সকালে সংবাদ সম্মেলন করে শিক্ষার্থীদের ‘হাফ’ ভাড়ার দাবি মেনে নেওয়ার ঘোষণা দেয়। কিন্তু বিকালে তা প্রত্যাখ্যান করে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন নয় দফা দাবিতে আন্দোলনে থাকা শিক্ষার্থীদের একটি দল। তাদের দাবি, কেবল ঢাকা মহানগরে নয়, ‘হাফ’ ভাড়া চালু করতে হবে সারা দেশে এবং সকাল ৭টা থেকে রাত ৮টার বদলে তা হতে হবে ২৪ ঘণ্টার জন্য।