মুখে মাস্ক পরে একটি নালায় নেমে ভেতরে দেখছেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম। এ ঘটনার কয়েকটি ছবি এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল। বিষয়টি অনেকেই ইতিবাচকভাবে দেখছেন। কেউ কেউ আবার কাজটি নেতিবাচকভাবে নিয়ে সমালোচনা করছেন।

মঙ্গলবার রাজধানীর মোহাম্মদপুরের বছিলা এলাকার স্বপ্নধারা হাউজিং মূল সড়ক (বছিলা ৪০ ফুট সড়ক) এলাকায় নালায় নেমেছিলেন তিনি। লাউতলা খালের উচ্ছেদ অভিযান পরিদর্শনের জন্য মেয়র সেখানে গিয়েছিলেন।

তবে ঠিক কী কারণে মেয়র হঠাৎ নালায় নেমেছিলেন, তা জানতে ঢাকা উত্তর সিটির মেয়রের দপ্তরে যোগাযোগ করা হয়। এ বিষয়ে মেয়র আতিকুল ইসলামের সহকারী একান্ত সচিব ফরিদ উদ্দিন গণমাধ্যমকে বলেন, মেয়র যে নালায় নেমেছেন, সেটি নতুন নির্মাণ করা হয়েছে। নালা নির্মাণের কাজটি সঠিকভাবে হয়েছে কি না, তা দেখতে ও যাচাই করতেই তিনি নালায় নেমেছিলেন। তিনি মূলত নতুন নির্মিত নালাটি সরাসরি পর্যবেক্ষণ করেছেন।

নালায় নামার সেই ছবি ডিএনসিসি’র ফেসবুক পেজে প্রকাশ করা হয়। সেই পোস্টে লেখা হয়, ‘জনগণের পয়সায় শহরোন্নয়নের কাজ হয়। জনগণ যাতে এর সর্বোচ্চ সুফলভোগী হয়, এটা নিশ্চিত করা জনপ্রতিনিধির কাজ। মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম সেটা নিশ্চিত করতে নিজেই ড্রেনে নেমে কাজের মান পরীক্ষা করে দেখছেন। ’ 


মেয়র আতিকুল ইসলামের নালায় নামার কিছু স্থির চিত্র ফেসবুকে দিয়ে একজন লিখেছেন, ‘নিন্দুকেরা বলবে শো-অপ। হ্যাঁ মানলাম শো-অপ। কিন্তু এই শো-অপ করার জন্য হলেও তো ড্রেনে (নালা) নামতে হয়েছে। বাংলাদেশের আর কোনো মেয়র এভাবে ড্রেনে নেমেছেন কি না, আমার জানা নেই।’

নালায় নেমে নিচু হয়ে ভেতরটা দেখছেন এমন একটি স্থির চিত্র শেয়ার করে আরেকজন আবার লিখেছেন, ‘এই ছবি এটাও প্রমাণ করে যে সিটি করপোরেশনের প্রকৌশলীরা উন্নয়নকাজের তদারকি ঠিকমতো করেন না। মেয়র তাদের লাইনে আনতে পারেননি, নতুবা তাদের ওপর তার বিশ্বাস নেই। এখন যাদের নামার দরকার ছিল তারা নামেনি।’

জানা গেছে, গত রোববার থেকে লাউতলা খালের দখল ও ভরাট হওয়া অংশ উদ্ধারে উচ্ছেদ অভিযান চালাচ্ছে ঢাকা উত্তর সিটি কর্তৃপক্ষ। অভিযানের তৃতীয় দিনে গতকাল দুপুরের পর খালের জায়গায় নির্মাণ করা বিট পুলিশিং কার্যক্রমের একটি কার্যালয়, আবাসন প্রতিষ্ঠানের একটি অবৈধ লোহার ফটক ও কার্যালয় এবং একটি অবৈধ আধা পাকা মার্কেটের দোকানপাট উচ্ছেদ করা হয়। এর একপর্যায়েই মেয়র হঠাৎ নালায় নেমে যান।