পবিত্র রমজান মাস উপলক্ষে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন-ডিএনসিসির বিশেষ অভিযানে একদিনে একদিনে ১ লাখ ৬৫ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। 

ডিএনসিসি এলাকায় খাবারের দোকানের অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ, নিত্যপণ্যের দোকানে মূল্য তালিকা না থাকা এবং অস্থায়ী দোকান বসিয়ে ফুটপাত দখলের দায়ে বিভিন্ন এলাকার দোকানদারদের এই জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

ডিএনসিসি অঞ্চল-৫ এর ২৬ নম্বর ওয়ার্ডে কারওয়ান বাজার এলাকায় অভিযান পরিচালনা করেন এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট ও আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা (অঞ্চল -৫) মোতাকাব্বীর আহমেদ। 

ফুটপাত দখল করে গড়ে উঠা ভ্রামমাণ দোকানসহ বিভিন্ন নিত্যপণ্যের দোকান, বাজার, ফলের দোকান ও মাছ-মাংসের দোকানে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়। বিভিন্ন দোকানিদের কাছ থেকে ১ লাখ ১০ হাজার টাকা আদায় করা হয়।

অঞ্চল-৪ এর আওতাধীন ১৩নং ওয়ার্ডে উত্তর পীরেরবাগ ও মধ্য পীরেরবাগ এলাকায় আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবেদ আলী অভিযান পরিচালনা করেন। 

১৩ নং ওয়ার্ডের ৪৮টি ভবন, স্থাপনা, জলাশয়, রেষ্টুরেন্ট ও দোকানপাট পরিদর্শন করা হয়েছে। ‘সবার ঢাকা’ অ্যাপস থেকে পাওয়া অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে ৩টি অভিযোগ নিষ্পত্তি করা হয়।

 ফুটপাতে মালামাল রেখে জনসাধারণের চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করায় নির্মাণাধীন ৩টি বাড়ির মালিককে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। প্রায় ২০০ মিটার ফুটপাত অবৈধ দখলমুক্ত করা হয়েছে। 

এই এলাকায় ২টি হোটেলে ভেজাল খাবার ও অতিরিক্ত দামে খাবার বিক্রি করার দায়ে ১৩ হাজার  ৫০০ টাকা জরিমানা করা হয়।

অঞ্চল-১(উত্তরা), ওয়ার্ড নং-১ এর সেক্টর-৬ এলাকার  বিডিআর বাজারে অভিযান পরিচালনা করেন  আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা ও নিবাহী ম্যাজিস্ট্রেট (অঞ্চল-১) মো. জুলকার নায়ন। 

মূল্য তালিকা না টানানোর দায়ে ভোক্তা অধিকার আইনে ২টি মামলায় ২ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। খাবারের দোকানগুলোতে স্বাস্থ্যকর পরিবেশ নিশ্চিত করতে সতর্ক করা হয়।

উত্তরা সেক্টর-১৪ এর জহুরা মার্কেট এলাকায় অভিযান পরিচালনা করেন অঞ্চল-৬ এর  আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাজিয়া আফরীন। 

এসময় প্রায় এক কিলোমিটার এলাকাজুড়ে ড্রেন, রাস্তা ও ফুটপাত থেকে ভ্রাম্যমাণ দোকান অপসারণ করা হয়েছে। অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ থাকায় ও অবৈধভাবে ফুটপাত দখল করে রাখায় ১  টি হোটেলকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। 

১৪ নং সেক্টরের ১টি রোডে অবৈধভাবে দখল করে রাখা সব কার্ভাডভ্যান ও পিকআপ অপসারণ করা হয়েছে।

মিরপুর-১, ব্লক-ডি এলাকায় অভিযান পরিচালনা করেন অঞ্চল-২ এর আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. জিয়াউর রহমান। খাবার হোটেলে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ থাকায় তিনটি হোটেলকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন তিনি।