শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে দুই যাত্রীর ব্যাগ তল্লাশি করে আমদানি নিষিদ্ধ ১৩৭ কার্টন বিদেশি সিগারেট জব্দ করা হয়েছে। এর মধ্যে ৭৭ মিনি কার্টন ডানহিল, ২০ মিনি কার্টন ইজি ও ৪০ মিনি কার্টন মন্ড সিগারেট রয়েছে। এ ছাড়া আমদানি নিষিদ্ধ প্রসাধনী ও ওষুধও জব্দ করা হয়।

বৃহস্পতিবার কাস্টম হাউস চট্টগ্রামের এয়ারপোর্ট ও এয়ারফ্রেইট ইউনিট এসব সামগ্রী জব্দ করে। গতকাল শুক্রবার চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসের ডেপুটি কমিশনার সালাউদ্দিন রিজভী বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

বিমানবন্দর সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১টায় বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বিজি-১৫২ ফ্লাইট সংযুক্ত আরব আমিরাতের শারজাহ থেকে চট্টগ্রামের শাহ আমানত বিমানবন্দরে পৌঁছায়। নিয়মিত চেকিংয়ের সময় নিষিদ্ধ বিভিন্ন পণ্য পাওয়া যায়। সিগারেট ছাড়াও আমদানি নিষিদ্ধ জার্মানির ৩৮ পিস প্রকোমিল স্প্রে, যুক্তরাজ্যের ৮৩ পিস এভোকুইন ক্রিম এবং ১৬৭ পিস রোয়েটিনেপ ট্যাবলেট জব্দ করা হয়।

চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসের ডেপুটি কমিশনার সালাউদ্দিন রিজভী জানান, এ ঘটনায় শুল্ক আইন ১৯৬৯ এবং প্রচলিত আইন অনুযায়ী জব্দ করা সিগারেট ও ড্রাই টোব্যাকো রাষ্ট্রের অনুকূলে বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।