সমকাল সুহৃদ সমাবেশ ও আল-খায়ের ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ঈদ উপহার পেয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েছিলেন ষাটোর্ধ্ব আউয়াল মিয়া। সদর উপজেলার খাদিমনগর ইউনিয়নের সাহেবের বাজারের এই বৃদ্ধ বললেন, 'আমার খুব খুশি লাগের। আমরারে ত্রাণ দিছোইন, আফনারে আল্লায় শান্তি করউক্কা। আফনানারে বেশি বেশি দান খয়রাতের তৌফিক দেউক্কা।'

বুধবার বিকেলে সিলেট নগরীর ধোপাদীঘিরপাড়ের হাফিজ কমপ্লেপে তার হাতে ঈদসামগ্রী তুলে দেওয় হয়। তার মতোই সহায়তা পান আরও অনেক অসহায় ও দুস্থ মানুষ। 'সবার জন্য ঈদের খুশি' স্লোগানে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ঈদ উপহার তুলে দেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। মন্ত্রী সমকাল এবং আল-খায়ের ফাউন্ডেশনের প্রশংসা করেন।

সমকালের সিলেট ব্যুরো প্রধান চয়ন চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন আল-খায়ের ফাউন্ডেশনের কান্ট্রি ডিরেক্টর তারেক মাহমুদ সজীব ও সমকাল সুহৃদ সমাবেশের বিভাগীয় প্রধান সিরাজুল ইসলাম আবেদ। উপস্থিত ছিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সহধর্মিণী সেলিনা মোমেন, সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি মাসুক উদ্দিন আহমদ, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শফিকুর রহমান চৌধুরী।

পাররাষ্ট্রমন্ত্রীর বাড়ি হাফিজ কমপ্লেপ অঙ্গনে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ঈদ উপহার নিতে সিলেটের বিভিন্ন এলাকা থেকে হাজির হন তিন শতাধিক অসহায় ও দুস্থ। চেয়ারে চেয়ারে সারিবদ্ধভাবে রাখা হয় উপহার। নগরীর উপশহর তেররতন এলাকার বয়োবৃদ্ধ লায়লা বেগম জানান, তিনি এবার প্রথম কোনো উপহার পেলেন। খুব খুশি হয়েছেন শাড়ি ও লুঙ্গি পেয়ে। শাড়িটি তার মেয়ে রুনা বেগমকে আর লুঙ্গিটি তার স্বামী সফর মিয়াকে দেবেন। আর যে খাদ্যসামগ্রী আছে, তা দিয়ে তাদের ঈদ চলে যাবে।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন সমকালের ফটোসাংবাদিক ইউসুফ আলী, ইকরা টিভির প্রযোজক কমলজিৎ শাওন, আহমেদ সেলিম, সমকাল সুহৃদ সমাবেশ সিলেটের সিনিয়র সহসভাপতি সুজিত দাশ, সাধারণ সম্পাদক সজীব চৌধুরী, প্রচার সম্পাদক প্রহর দাশ প্রমুখ।