তিনদিন ধরে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে মারা গেলেন চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে পুকুরের ঘাট ব্যবহার নিয়ে দ্বন্দ্বে ছুরিকাঘাতে আহত মো. বাবলু। শুক্রবার সকালে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। ৩২ বছর বয়সী নিহত মো. বাবলু সীতাকুণ্ড উপজেলার পৌর সদরের শেখ নগর গ্রামের বাসিন্দা কামাল উদ্দিনের ছেলে।

সীতাকুণ্ড থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সুমন কান্তি বণিক জানান, গত ২৬ এপ্রিল পৌরসভার শেখ নগর এলাকার একটি পুকুরের ঘাট ব্যবহার নিয়ে প্রতিবেশী নারীদের মধ্যে ঝগড়া হয়। ঝগড়ার একপর্যায়ে নারীদের স্বামীরা ও স্থানীয় পুরম্নষরাও এতে জড়িয়ে পড়েন। একপর্যায়ে ওইদিন রাতে রেল লাইনের পাশে মো. বাবলুকে ছুরিকাঘাত করে দুর্বৃত্তরা। পরে তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে রাতে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার সকালে মারা যান মো. বাবলু। এই ঘটনায় বাবলুর বাবা কামাল উদ্দিন চার জনের নাম উল্লেখ করে হত্যাচেষ্টার মামলা দায়ের করেছেন।

তিনি বলেন, জড়িতদের গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে।

সীতাকুণ্ড থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ জানান, পুকুরঘাটে দুই নারীর মধ্যে ঝগড়া হয়। তুচ্ছ এ বিষয়টি নিয়ে তাদের পরিবারের পুরুষরা একপর্যায়ে নিজেদের মধ্যে মারামারিতে লিপ্ত হন। এই মারামারিতে কোনো এক পক্ষের রোষানলে পড়ে ছুরিকাঘাতে আহত হয় বাবলু। আসামিদের দ্রুত সময়ের গ্রেপ্তার করা হবে।