দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে আলোচিত সহিদুল হত্যার ২০ দিনের মাথায় রহস্য উদ্ঘাটন করেছে পুলিশ। জুয়া খেলায় সহিদুল জিতে যাওয়ায় সঙ্গীরাই টাকার জন্য তাকে হত্যা করে। হত্যায় জড়িত তিন জুয়াড়িসহ চারজনকে আটক করা হয়েছে।

আটকরা হলেন- উপজেলার শিবনগর ইউপির দাদপুর মালিপাড়া গ্রামের আমিনুল ইসলাম টেম্পু, পশ্চিম গৌরীপাড়া (জোলাপাড়া) গ্রামের জীবন, আশিক ও দাদপুর মালিপাড়া গ্রামের সোহেল।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ফুলবাড়ী থানার উপপুলিশ পরিদর্শক রওশন সরকার বলেন, আটক তিন জুয়াড়ির মধ্যে একজন হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার কথা আদালতে স্বীকার করেছে। তার দেওয়া স্বীকারোক্তি অনুযায়ী অন্য জুয়াড়িদের আটক করা হয়।

দাউদপুর মালিপাড়া গ্রামের আমিনুল ইসলাম টেম্পু আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে জানান, ১৭ এপ্রিল রাতে সহিদুল, জীবন ও আশিক জুয়া খেলছিল। সেও তাদের সঙ্গে যোগ দেয়। এক পর্যায়ে জুয়া খেলার অধিকাংশ টাকাই সহিদুল জিতে নেয়। এ টাকা নিয়ে সহিদুল টয়লেটের দিকে রওয়ানা হলে প্রথমে জীবন, মেসি ও রানা তার পিছু নেয়।

টয়লেট থেকে বের হওয়া মাত্রই তারা সহিদুলের ওপর হামলা করে। এক পর্যায়ে জীবন ছুরি দিয়ে তার গলা কেটে দেয়। অন্যরা সহিদুলকে চেপে ধরে। মৃত্যু নিশ্চিত করে ঘটনা আড়াল করতে ঘটনাস্থলের পাশে থাকা কাপড় শুকানোর দড়ি কেটে বারান্দার পাড়ের সঙ্গে লাশ ঝুলিয়ে দেয়।