চারদিকে বসতবাড়ি। আছে মসজিদ, মাদ্রাসা, এতিমখানা ও কিন্ডারগার্টেন। এর মাঝেই নির্মাণ করা হচ্ছে 'ময়লার ডিপো' বা বর্জ্য স্থানান্তর স্টেশন। ৫-৬ মাস আগে রাজধানীর পূর্ব নন্দীপাড়ার সরকারি এই জায়গায় ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) ডিপো নির্মাণের কাজ শুরু করেছে।

আবাসিক এলাকার মধ্যে ময়লার ডিপো নির্মাণকাজে ক্ষুব্ধ পূর্ব নন্দীপাড়াবাসী। তারা বলছেন, বসতবাড়ির পাশে ময়লার ডিপো হলে দুর্গন্ধে এলাকাটি বসবাসের অনুপযোগী হয়ে পড়বে। পূর্ব নন্দীপাড়ায় সরকারি পরিত্যক্ত অনেক জায়গা আছে। সেখানে ময়লার ডিপো তৈরি করা হোক। আর এই জায়গাটিতে পানির পাম্প বসানোর দাবি জানান তারা। কারণ, এ এলাকায় পানির সমস্যা দীর্ঘদিনের।

ময়লা ডিপোর পরিবর্তে সেখানে পানির পাম্প কিংবা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নির্মাণের দাবিতে গত জানুয়ারি মাসে ডিএসসিসির মেয়রের কাছে লিখিত আবেদন করেছেন এলাকাবাসী। এরপরও নির্মাণকাজ বন্ধ হয়নি।

স্থানীয়রা জানান, এলাকাটি ডিএসসিসির ৭৪ নম্বর ওয়ার্ডের আওতাধীন। এলাকার ৬ নম্বর সড়কের মুখের সরকারি জায়গাটি দখল করে দোকানপাট বসিয়েছিলেন কয়েকজন। ৬-৭ মাস আগে ৭৪ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আজিজুল হক ওই জায়গাটি দখলমুক্ত করতে এলাকাবাসীর সহযোগিতা চান। সেখানে পানির পাম্প বা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নির্মাণ করা হবে বলে জানিয়েছিলেন তিনি।

দখলমুক্ত হওয়ার পরপরই সেখানে নির্মাণকাজ শুরু হয়। এলাকাবাসী মনে করেছিলেন, কাউন্সিলরের দেওয়া প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী কাজ হচ্ছে। কিন্তু পরবর্তীতে এলাকাবাসী জানতে পারেন, সেখানে ময়লার ডিপো নির্মাণের কাজ চলছে। এতে তারা ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন। স্থানীয় বায়তুল আমান জামে মসজিদের সেক্রেটারি রফিক হামজা শেখ সমকালকে বলেন, এখানে ময়লা রাখার ডিপো করা হলে মানুষ বসবাস করবে কী করে? স্থানীয় বাসিন্দা আব্দুর রহিম বলেন, এখানে ময়লার ডিপো হলে পচা-গন্ধে মশামাছির উপদ্রপ বাড়বে। এলাকায় ফাঁকা জায়গার অভাব নেই। সেসব জায়গায় এটা সরিয়ে নেওয়ার দাবি জানান তিনি।

কাউন্সিলর আজিজুল হক বলেন, তিনি এলাকাবাসীকে বলেছিলেন পানির পাম্প, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স বা সরকারি যে কোনো প্রতিষ্ঠান হতে পারে ওই জায়গায়। এখন একটা প্রতিষ্ঠান তো হচ্ছে, সেটি নাগরিকের সেবার জন্যই। তবে দুর্গন্ধ যাতে না ছড়ায় সে ব্যবস্থা করার চেষ্টা করা হবে। তিনি বলেন, এলাকায় ময়লার ডিপো খুবই প্রয়োজন। কিন্তু এই জায়গা ছাড়া আর কোনো ফাঁকা জায়গা নেই। ডিপো না থাকায় বর্তমানে উন্মুক্ত স্থানে ময়লা ফেলা হয়। সেটা ছড়িয়ে-ছিটিয়ে যায়। এতে বেশি ক্ষতি হচ্ছে। এ কারণে ডিপো করে একটি নির্দিষ্ট আটকা জায়গায় ময়লা রাখার ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

বিষয় : নন্দীপাড়াবাসী ময়লার ডিপো

মন্তব্য করুন