শিশুর অধিকার নিশ্চিতে সরকার বিভিন্ন পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করছে। কিন্তু এখনো শিশুরা বিশেষ করে ঢাকা চট্টগ্রাম ও গাজীপুর সিটি করপোরেশনসহ শহরাঞ্চলের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠী এবং বস্তি এলাকার শিশুরা তাদের অধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। যা শিশুর স্বাভাবিক বিকাশকে বাধাগ্রস্ত করছে। ভবিষ্যতে সুন্দর ও মানবিক মর্যাদা সম্পন্ন রাষ্ট্রের জন্য সব শিশুর অধিকার নিশ্চিত করতে হবে। এটি নিশ্চিতে শিশুর জন্য নিরাপদ নগরী গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়েছেন বক্তারা।

বুধবার জাতীয় প্রেসক্লাবের মওলানা মোহাম্মদ আকরাম খাঁ মিলনায়তনে 'শিশুর জন্য নিরাপদ নগরী চাই' শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা এ আহ্বান জানান। চিলড্রেন অ্যাফেয়ার্স জার্নালিস্টস্ নেটওয়ার্ক (সিএজেএন) এবং ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ, আরবান প্রোগ্রাম যৌথভাবে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে।

এতে প্রধান অতিথি ছিলেন সংসদ সদস্য অ্যারোমা দত্ত। সিএজেএনের সহ-সভাপতি এবং চ্যানেল আইয়ের বিশেষ প্রতিনিধি মোস্তফা কামাল মল্লিকের সঞ্চালনায় মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশের সিনিয়র ডিরেক্টর (অপারেশন্স এন্ড প্রোগ্রাম কোয়ালিটি) চন্দন জেড গোমেজ।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, সব শিশুর স্বাভাবিক বিকাশকে সুনিশ্চিত করতে ওয়ার্ল্ড ভিশন আরবান প্রোগ্রামের মাধ্যমে ঢাকা, চট্টগ্রাম ও গাজীপুর সিটি করপোরেশন এলাকায় পিছিয়ে পড়া শিশুদের অধিকার নিশ্চিতে ২০২১ থেকে ২৫ সাল পর্যন্ত বিশেষ কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। এই কর্মসূচি চারটি বিষয় নিয়ে পরিচালিত হচ্ছে। বিষয়গুলো হলো- সব শিশুর জন্য খেলার মাঠ ও বিনোদন পার্ক চাই, আর নয় শিশু শ্রম ও পথ শিশু; ফিরে যাই স্কুলে, শিশুদের জন্য চাই দূষণমুক্ত সবুজ নগরী এবং কিশোর-কিশোরীদের জন্য গুণগত প্রজনন স্বাস্থ্যসেবায় প্রবেশাধিকার নিশ্চিতকরণে প্রতিটি ওয়ার্ডে চাই মানসম্মত ও সুসজ্জিত নগর স্বাস্থ্যকেন্দ্র।

আরও বক্তব্য দেন ওয়ার্ল্ড ভিশনের ডেপুটি ডিরেক্টর (ফিল্ড প্রোগ্রাম অপারেশন) মঞ্চ মারীয়া পালমা, টেকনিক্যাল প্রোগ্রাম ম্যানেজার (আরবান প্রোগ্রাম) যোয়ান্না ডি' রোজারিও, সিএজেএনের সভাপতি বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার বিশেষ প্রতিনিধি মাহফুজা জেসমিন, সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক যুগান্তরের সিনিয়র রিপোর্টার শিপন হাবীব, শিশু ফোরামের সদস্য লামিয়া আক্তার মীম প্রমুখ।