লক্ষ্মীপুরের বশিকপুর এলাকায় কাঠমিস্ত্রি আহসান উল্যাহকে কুপিয়ে ও গুলি করে হত্যা মামলায় সাত আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. রহিবুল ইসলাম এ রায় দেন। এছাড়া দণ্ডপ্রাপ্ত প্রত্যেক আসামিকে ১০ হাজার টাকা করে অর্থদণ্ড ও অনাদায়ে আরো এক বছর করে কারাদণ্ডের আদেশও দেন আদালত।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী জসিম উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ২০১৪ সালের ২৬ জুলাই রাত আড়াইটার দিকে কাঠমিস্ত্রি আহসান উল্যাহকে কুপিয়ে ও গুলি করে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। দীর্ঘ নয় বছর পর এই মামলার রায় দিয়েছেন আদালত। এ রায়ে খুশি বাদী ও রাষ্ট্রপক্ষ।

তিনি জানান, দণ্ডপ্রাপ্তরা হচ্ছেন- বশিকপুরের মুরাদ হোসেন, জাকির হোসেন, রিপন হোসেন, নিশান উদ্দিন,সুমন হোসেন,জামাল উদ্দিন ও আলমগীর হোসেন। এদের মধ্যে সুমন হোসেন রায়ের সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন। অন্য ছয় আসামি জামিনে গিয়ে পলাতক রয়েছেন।

আদালত ও মামলা সূত্র জানায়, সদর উপজেলার বাশিকপুরের নন্দিগ্রাম এলাকায় ২০১৪ সালের ২৬ জুলাই রাত আড়াইটার দিকে পোদ্দার বাজারে কাঁঠাল বিক্রি করে বাড়ি ফিরছিলেন আহসান উল্যাহ। এ সময় সন্ত্রাসীরা পরিকল্পিতভাবে তাকে কুপিয়ে ও গুলি করে হত্যা করে । ওইদিনই নিহত আহসান উল্যাহর ছেলে মো. আলম বাদী হয়ে সদর থানায় ৬/৭জনকে অজ্ঞাত আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। ২০১৫ সালের ২৬ জুন ৭ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে প্রতিবেদন দেয় পুলিশ।দীর্ঘ শুনানি শেষে প্রায় ৯ বছর পর এই মামলার রায় দেন আদালত।