ভারতীয় সামরিক বাহিনীর নতুন সেনা নিয়োগ প্রক্রিয়া ‘অগ্নিপথ’ নিয়ে দেশটির সাত রাজ্যজুড়ে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে। প্রতিবাদ-সহিংসতায় এ পর্যন্ত একজন নিহত এবং বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন।

এসব রাজ্যের উত্তেজিত প্রতিবাদকারীরা পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়ানোর পাশাপাশি অন্তত সাতটি ট্রেনে আগুন দিয়েছে। খবর এনডিটিভির। 

শুক্রবার দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্য তেলেঙ্গানায় সহিংস প্রতিবাদ ছড়িয়ে পড়ার পর একজন নিহত ও ১৫ জনেরও বেশি আহত হয়। রাজ্যটির সেকেন্দ্ররাবাদে একটি যাত্রীবাহী ট্রেনে আগুন দেওয়া হয়। 

সামরিক বাহিনীর সেনা সংগ্রহের নতুন এ পরিকল্পনা নিয়ে সহিংস প্রতিবাদের স্বাক্ষী হয়েছে বিহার, পশ্চিমবঙ্গ, উত্তর প্রদেশ, হারিয়ানা ও মধ্য প্রদেশসহ বেশ কয়েকটি রাজ্য।

এদিকে বিহারের পশ্চিম চম্পারান জেলার বেটিয়ায় রাজ্যের উপমুখ্যমন্ত্রী রেণু দেবীর বাড়িতে হামলা চালিয়েছে বিক্ষোভকারীরা। বুধবার এই বিহারে থেকেই নরেন্দ্র মোদী সরকারের ‘অগ্নিপথ’ পরিকল্পনার বিরুদ্ধে প্রথম সহিংস বিক্ষোভ শুরু হয়েছিল। 

ভারতের বিজেপি দলীয় সরকার মঙ্গলবার ‘অগ্নিপথ’ পরিকল্পনা প্রকাশ করে। সরকার এটিকে ‘রূপান্তরকারী’ পরিকল্পনা বলে আখ্যায়িত করেছে। এ পরিকল্পনায় ভারতীয় সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী ও বিমান বাহিনীর জন্য সেনা হিসেবে ১৭ বছর ৬ মাস থেকে ২১ বছর বয়সীদের জন্য চার বছর মেয়াদি স্বল্পকালীন চুক্তিভিত্তিক নিয়োগের কথা বলা হয়েছে যেখানে পেনশনের কোনো ব্যবস্থা রাখা হয়নি।