স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক স্বপন বলেছেন, বন্যার কারণে সারাদেশে ১৪০টি মেডিকেল টিম গঠন করা হয়েছে। মেডিকেল টিমের সদস্যরা জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে গিয়ে সেবা দেবেন। এ ছাড়া সিলেটে জেলা ও উপজেলার জন্য পৃথক মেডিকেল টিম গঠন করা হয়েছে। টিমের মধ্যে ডাক্তার, নার্স, সিভিল সার্জন, এসপি, ডিসি ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারাও আছেন। বন্যাকবলিত এলাকায় মনিটরিং করার জন্য ঢাকায় একটি কোঅর্ডিনেশন কমিটি গঠন করা হয়েছে।

শনিবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে মানিকগঞ্জ সরকারি দেবেন্দ্র কলেজ মিলনায়তনে জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘সিলেটে বন্যা হচ্ছে এবং অনেক জেলা প্লাবিত হয়েছে। বন্যার পানিতে হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা ব্যহত হচ্ছে। বন্যার পানি ঢুকে গেছে হাসপাতালে এবং যাওয়া আসা ও রাস্তঘাট ডুবে গেছে। চিকিৎসা দেওয়া কষ্ট হচ্ছে। মেডিকেল টিমের সদস্যরা স্যালাইন, পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবেলেটসহ অন্যান্য চিকিৎসার জন্য যা যা প্রয়োজন সব নিয়ে যাচ্ছেন। রাস্তাঘাট তলিয়ে যাওয়ায় নৌকা, স্পিডবোটসহ যে কোনো বাহনের মাধ্যমে গিয়ে তারা মানুষকে সেবা দিচ্ছেন।’

তিনি বলেন, ‘দেশে করোনা বৃদ্ধি পাচ্ছে, করোনার জন্য আমাদের সজাগ থাকতে হবে। মাস্ক পরতে হবে এবং টিকা না নিয়ে থাকলে অবশ্যই দ্রত টিকা নিতে হবে। যে যতটুকু পারেন, সাবধানে থাকবেন।’

জেলা মহিলা লীগের সভাপতি নীনা রহমানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। এসময় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাফিয়া খাতুন, কেন্দ্রীয় মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদা বেগম, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট গোলাম মহীউদ্দীন, সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সালাম, মানিকগঞ্জ-১ আসনের সংসদ এএম নাঈমূর রহমান দুর্জয় ও মানিকগঞ্জ-২ আসনের সংসদ মমতাজ বেগমসহ মহিলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ।