উন্নয়ন অনুদান ও গৃহকর আদায়কে আয়ের মূল খাত দেখিয়ে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের ২০২২-২৩ অর্থবছরের  মোট ২ হাজার ১৬১ কোটি ২৭ লাখ ৫০ হাজার টাকার বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে। আজ (রোববার) দুপুরে নগরের থিয়েটার ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে বাজেট ঘোষণা করেন সিটি মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী। নির্বাচিত মেয়র হিসেবে এটি তার দ্বিতীয় বাজেট।

নতুন অর্থবছরের বাজেটের পাশাপাশি ২০২১-২২ অর্থবছরের এক হাজার ২০২ কোটি ৫৭ লাখ টাকার সংশোধিত বাজেট উপস্থাপন করা হয়। ওই অর্থবছরে মোট ২৪৬৩ কোটি ৯৬ লাখ টাকার বাজেট ঘোষণা করা হয়েছিল। বাজেট বাস্তবায়ন হয়েছে ৪৯ শতাংশ। 

প্রস্তাবিত বাজেটে তিন ধরনের কর বাবদ মোট আয় ধরা হয়েছে ৫৮৪ কোটি ৪৫ লাখ টাকা। এর মধ্যে বকেয়া কর ও অভিকর খাতে সর্বোচ্চ ২১৫ কোটি ৯১ লাখ টাকা আয় ধরা হয়েছে। হাল কর ও অভিকর খাতে ২১১ কোটি ৭৯ লাখ টাকা এবং অন্যান্য কর বাবদ ১৫৭ কোটি ৫ লাখ টাকা আয় ধরা হয়েছে। 

গত অর্থবছরে (২০২১-২২) তিন ধরনের করে মোট আয় ধরা হয়েছিল ৫৩৩ কোটি ৯৩ লাখ ৫০ হাজার টাকা। গত অর্থবছরের সংশোধিত বাজেট অনুসারে ওই তিন ধরনের আয়কর বাবদ চসিকের আয় হয়েছে ৩১১ কোটি ১৬ লাখ টাকা।

নতুন অর্থবছরের বাজেটে উন্নয়ন অনুদান খাতে ১২১২ কোটি টাকা আয় দেখানো হয়েছে। এ ছাড়া অন্যান্য উৎস থেকে ৩৯ কোটি ৭০ লাখ টাকা আয় ধরা হয়।

ঘোষিত বাজেটে নগরের উন্নয়ন খাতে সর্বোচ্চ ১২৫৯ কোটি ৫০ টাকা ব্যয় ধরা হয়েছে। ২০২১-২২ অর্থবছরের বাজেটে উন্নয়ন খাতে ৮৮২ কোটি ৫০ টাকা ব্যয় ধরা হলেও খরচ হয়েছে ৬৮৭ কোটি ৬৫ লাখ টাকা। এবারের বাজেটে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ব্যয় ধরা হয়েছে বেতন, ভাতা ও পারিশ্রমিক খাতে ২৯০ কোটি ১০ লাখ টাকা।

সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শহীদুল আলমের সভাপতিত্বে বাজেট অধিবেশনে বাজেট বিবরণী উপস্থাপন করেন অর্থ ও সংস্থাপন বিষয়ক স্থায়ী কমিটির সভাপতি কাউন্সিলর মো. ইসমাইল। উপস্থিত ছিলেন প্যানেল মেয়র আবদুস সবুর লিটন, মো. গিয়াস উদ্দিন ও আফরোজা কালাম, সিটি করপোরেশনের সচিব খালেদ মাহমুদ, প্রধান প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম মানিক, অতিরিক্ত প্রধান হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা হুমায়ুন কবির ও ওয়ার্ড কাউন্সিলররা উপস্থিত ছিলেন।