নগদ টাকা ছাড়াই এবার ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ড বা মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে কোরবানির পশুর হাট থেকে গরু-ছাগল কেনার সুযোগ করে দিয়েছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি)। ছয়টি হাটে এই ডিজিটাল পদ্ধতিতে পশু কেনার সুযোগ থাকবে।

হাটগুলো হল- গাবতলী, বসিলা, আফতাবনগর, ভাটারা, কাওলা ও উত্তরা ১৭ নম্বর সেক্টরের হাট। পাইলট প্রকল্প হিসেবে ডিএনসিসি এসব পশুর হাটে ডিজিটাল লেনদেনের ব্যবস্থা করবে।

বুধবার রাজধানীর বনানীর ঢাকা শেরাটন হোটেলে ডিএনসিসির মেয়র আতিকুল ইসলাম এ ঘোষণা দেন। এ সময় প্রধান অতিথি ছিলেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রী তাজুল ইসলাম।

ডিএনসিসি জানায়, পশুর হাটগুলো পেমেন্ট পার্টনার হিসেবে মাস্টার কার্ড, ভিসা ও আমেরিকান এক্সপ্রেস ছাড়াও ব্যাংক এশিয়া, ব্র্যাক ব্যাংক, মিউচ্যুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক, ইস্টার্ন ব্যাংক, ইসলামী ব্যাংক, সিটি ব্যাংক এই ডিজিটাল লেনদেনের সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকবে। মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস প্রদানকারী সংস্থা হিসেবে থাকবে বিকাশ ও ইসলামী ব্যাংক এম ক্যাশ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী তাজুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশ একটি উন্নত দেশে পরিণত হবে। সেই পথে আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। আমাদের দেশের মন্ত্রী-এমপি, সরকারি কর্মকর্তা, ব্যবসায়ী, ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, কৃষক, সাধারণ মানুষসহ সব শ্রেণি-পেশার মানুষকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে এ ক্ষেত্রে দায়িত্ব পালন করতে হবে। আমি বিশ্বাস করি শুধু উত্তর সিটি করপোরেশনের পশুর হাট নয়, পর্যায়ক্রমে দেশের সব জায়গায় ডিজটাল লেনদেনের ব্যবস্থা চালু হবে।

মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, হাটে গেলে পথে কোনো খামারির টাকা ছিনতাই হবে, সেটা মেনে নেওয়া যায় না। নিরাপদ লেনদেন নিশ্চিত করতে আমরা স্মার্ট হাটের উদ্যোগ নিয়েছি।

তিনি বলেন, ডিএনসিসি ইতোমধ্যে ডিজিটাল মাধ্যমে নানা কার্যক্রম পরিচালনা করছে। আগামী ছয় মাসের মধ্যে রিকশাগুলোতে ডিজিটাল নম্বর প্লেট দেব, কিউআর কোডসহ। কিউআর কোড থাকায় সব তথ্য থাকবে। এভাবে আমরা নিরাপদ চলাচলের ব্যবস্থা করতে পারব। প্রথম অবস্থায় ঢাকা শহরে দুই লাখ রিকশায় ডিজিটাল নম্বর প্লেট দেওয়া হবে। এই নম্বর প্লেট আসবে বাইরে থেকে।

তিনি জানান, আগামী মাসে ডিএনসিসি এলাকায় ডিজিটাল কার পার্কিং শুরু হবে। স্মার্ট সিটি স্মার্ট বাংলাদেশ স্মার্ট ডিএনসিসি উপহার দিতে চাই। স্মার্ট ঢাকা গড়ে তোলার লক্ষ্যে আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি।

অনুষ্ঠানে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব ইয়ামিন চৌধুরী, ডিএনসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সেলিম রেজা, বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক খুরশীদ আলম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।